logo
আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ১১:০৬
মির্জাপুরে হাজতখানায় আটক ব্যক্তির আত্মহত্যা
মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি

মির্জাপুরে হাজতখানায় আটক ব্যক্তির আত্মহত্যা

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর পুলিশ ফাঁড়িতে আটক লেবু মিয়া (৫৫) নামের এক ব্যক্তি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। সোমবার রাতে উপজেলার বাঁশতৈল পুলিশ ফাঁড়িতে এই ঘটনা ঘটে।

লেবু মিয়া বাঁশতৈল গ্রামের বাহার উদ্দিনের ছেলে। সোমবার ওই গ্রামের মফিজুর রহমানের প্রাক্তন স্ত্রী সখিনা আক্তার (৪২) হত্যার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মফিজুর রহমান ও লেবু মিয়াকে আটক করে।

মঙ্গলবার সকালে মির্জাপুর থানার ওসি শেখ আবু সালেহ মাসুদ করিম এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, পাঁচ বছর আগে স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হওয়া সখিনা আক্তার দুই মেয়ে ও এক ছেলে নিয়ে থাকতেন। মেয়েদের বিয়ে হওয়ায় এবং ছেলে বিদেশ থাকায় ছেলের স্ত্রীকে নিয়ে তিনি থাকতেন। পুত্রবধূ বাবার বাড়িতে যাওয়ায় রবিবার রাতে সখিনা আক্তার বাড়িতে একাই ছিলেন।

রাতের কোনো এক সময় কে বা কারা সখিনাকে বসতঘরে ঢুকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। খবর পেয়ে সোমবার বেলা ১২টার দিকে বাঁশতৈল ফাড়ি পুলিশ সখিনার মরদেহ উদ্ধার করে।

এই ঘটনায় পুলিশ সখিনার প্রাক্তন স্বামী মফিজুর রহমান ও কথিত পরকীয়া প্রেমিক লেবু মিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে। রাতে আটক দুইজনকে পুলিশ ফাঁড়ির হাজাতখানায় রাখা হয়। রাতের কোনো এক সময় লেবু মিয়া গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

বাঁশতৈল ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মনিরুজ্জামান বলেন, খবর পেয়ে মঙ্গলবার সকালে পুলিশ ফাঁড়িতে যাই। সেখানে লেবু মিয়ার গলায় রশি প্যাঁচানো অবস্থায় তাকে দেখতে পাই।

মির্জাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ আবু সালেহ মাসুদ করিম বলেন, লেবু মিয়ার মরদেহ থানায় আনা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।