logo
আপডেট : ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০৯:৩৩
ভাতিজিকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে চাচার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের
মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি

ভাতিজিকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে চাচার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের

মোংলায় শিশু শ্রেণিতে পড়ুয়া ভাতিজিকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে চাচার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে। কলা খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে ঘরে ডেকে নিয়ে সোমবারের ধর্ষণের চেষ্টার ঘটনায় শিশুটির মা বুধবার রাতে থানায় এ অভিযোগ দায়ের করেছেন।

মোংলা থানায় দায়েরকৃত অভিযোগের প্রেক্ষিতে জানা গেছে, উপজেলার মিঠাখালী ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের গোয়ালেরমেঠ এলাকার বাসিন্দা কাদের খা (৫৫) তার আপন চাচাতো ভাইয়ের শিশু কন্যাকে কলা খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে তার ঘরে ডেকে নেয়। সোমবার বেলা ১১টার দিকে শিশুটিকে একটি কলা দিয়ে ঘরে নিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করেন চাচা কাদের। তখন শিশুর মা তাকে বাড়িতে না দেখে ডাকতে শুরু করলে মুখে গামছা বাঁধা ও পরনের কাপড়হীন অবস্থায় শিশুটি চাচা কাদেরের ঘর থেকে বেরিয়ে আসে। মেয়ের ওই অবস্থা দেখে মা ডাক চিৎকার শুরু করলে কাদের ঘর থেকে দ্রুত বেরিয়ে পালিয়ে যায়।

শিশুটির ঘরের পাশেই চাচার ঘর। এরপর বিষয়টি স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমান্য লোকজনেরা জানার পর কাদেরকে মসজিদের মোয়াজ্জেম চাকরি থেকে অব্যাহতি দেন। কাদের স্থানীয় মসজিদের মোয়াজ্জেমের চাকরির পাশাপাশি দিনমজুরের কাজ করতেন। এ ঘটনার পর কাদের গা ঢাকা দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী ও শিশুটির পরিবার। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের কাছে কোন সুবিচার না পেয়ে এ ঘটনায় বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে শিশুটির চাচা ও ভাশুর কাদেরের বিরুদ্ধে থানায় ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ দায়ের করেছেন শিশুর মা।

শিশুটির পিতাও দিনমজুরের কাজ করেন। তার দুই সন্তানের মধ্যে এ মেয়েটি বড়। মেয়েটি গোয়ালেরমেঠ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশু শ্রেণিতে পড়ে।

শিশুর পিতা বলেন, কাদের সম্পর্কে আমার আপন চাচাতো ভাই। সে আমার মেয়ের সঙ্গে যে কাজ করেছে তার উপযুক্ত বিচার চাই। এর আগেও গত বছর একই এলাকার তৃতীয় শ্রেণির এক শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন এই কাদের। এ ছাড়া এমন কুস্বভাবের কারণে ১০/১২ বছর আগে তার স্ত্রীও তাকে ছেড়ে অন্যত্র চলেও গেছেন। তারপরও তার কুকর্ম থেমে নেই।

শিশুটির মা বলেন, আমার ছোট্ট মেয়েটাকে কলা খাওয়ার লোভ দেখিয়ে আমার চাচাতো ভাশুর কাদের খা ধর্ষণের চেষ্টা করেছেন। এ জঘন্য ঘটনার জন্য আমি থানা-পুলিশের কাছে তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাই।

মোংলা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম বলেন, গোয়ালেরমেঠ এলাকার একটি শিশুকে তার চাচার বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ পেয়েছি। আমরা তাকে আটকের জন্য তৎপরতা শুরু করেছি। তাকে দ্রুত সময়ের মধ্যে আটক করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।