logo
আপডেট : ৫ অক্টোবর, ২০২২ ১৫:৩২
মাঠ বদলের সঙ্গে উইকেটের চরিত্রে পরিবর্তন আসছে তো!
ক্রীড়া প্রতিবেদক, সিলেট থেকে

মাঠ বদলের সঙ্গে উইকেটের চরিত্রে পরিবর্তন আসছে তো!

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের প্রথম মাঠ প্রস্তুত ছিল না। তাই নারী এশিয়া কাপের শুরুর ৯ ম্যাচই রাখা হয়েছিল আউটার গ্রাউন্ডে। অবিশ্বাস্য টার্ন, নিচু বাউন্স আর স্পিনারদের অতিরিক্ত দাপট ছিল এ মাঠের উইকেটে। টসই যেন ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দিচ্ছিল। ক্রিকেটারদের পাশাপাশি স্বাগতিক দলের কোচ মাহমুদ ইমনও গতকাল কড়া সমালোচনা করেছেন উইকেটের। এ নিয়ে যখন ক্রিকেটপাড়া সরগরম, তখনই বদলে যাচ্ছে টুর্নামেন্টের মাঠ। ১ নম্বর মাঠেই কাল মালয়েশিয়ার বিপক্ষে খেলতে নামছে বাংলাদেশ। তবে মাঠ বদলের সঙ্গে উইকেটের চরিত্রে পরিবর্তন আসবে তো!

বৃহস্পতিবার থেকে ফাইনাল পর্যন্ত বাকি ১৫ ম্যাচই হবে সিলেটের এক নম্বর মাঠে। আগের দিন উইকেট নিয়ে হতাশা জানাতে গিয়ে বাংলাদেশ কোচ বলেছিলেন, ‘এমন উইকেট তিনি সিলেটের স্থানীয় ক্রিকেটেও দেখেননি।’ উইকেট সংশ্লিষ্টদের বিষয়টি জানানোর পর তারা নাকি আশ্বস্ত করেছেন পরবর্তী সময়ের বিষয়ে। তবে এই অল্প সময়ে আহামরি পরিবর্তনের কোনো সম্ভাবনা নেই।

সিলেটে দুটি মাঠ ও অনুশীলনসহ ৩৮টি উইকেট দেখভাল করেন ভারতীয় কিউরেটর সঞ্জীব আগারওয়াল। এতগুলো উইকেট একজনের পক্ষে সামলানো কঠিন। তাই বড় ইভেন্ট থাকলে তাকে সহায়তা করতে আসেন চট্টগ্রামের ভারতীয় কিউরেটর প্রবীণ হিঙ্গানিকার। সর্বশেষ বিপিএলেও সহায়তা করতে এসেছিলেন তিনি। কথা অনুযায়ী এবারও এসেছেন, টুর্নামেন্টের বাকি সময়ে থাকবেন। এক নম্বর গ্রাউন্ডের সবকিছু সামলাবেন তিনিই।

বুধবার সকাল থেকেই মাঠকর্মীদের নিয়ে উইকেট পরিচর্যা করতে দেখা যায় তাকে। তখন দুই নম্বর মাঠে মালয়েশিয়া-সংযুক্ত আরব আমিরাতের ম্যাচে ব্যস্ত সময় পার করছিলেন সঞ্জিব। বৃহস্পতিবার এই মাঠে আছে দুই ম্যাচ। সকাল ৯টায় পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে থাইল্যান্ড। দুপুর দেড়টায় খেলবে বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়া। খেলা হবে চার নম্বর উইকেটে।

আউটার গ্রাউন্ডের উইকেট থেকে মূল মাঠের উইকেট কিছুটা ভালো হতে পারে বলে আশা করা যাচ্ছে। তবে স্পিনারদের দাপট কমার সম্ভাবনা ক্ষীণ। বিশেষ করে সকালের ম্যাচগুলোতে মন্থর গতি ও নিচু বাউন্স দেখা মিলতে পারে। বেলা বাড়লে উইকেটের আচরণ এমনিতেই কিছুটা ভালোর দিকে যায়।

এই মাঠের উইকেট কেমন হতে পারে জানতে চাইলে গতকাল মাহমুদ ইমন বলেছিলেন, ‘খুব সকালে আউটার গ্রাউন্ডের উইকেটে ঘাপলা থাকে। পরের দিকে সহজ হয়ে যায়। এই মাঠেও সেরকমই হবে বলে আমার মনে হয়।’

মালয়েশিয়া ও ভারতের বিপক্ষে পরের দুই ম্যাচ দুপুরে হওয়ায় কিছুটা ভালো উইকেটের প্রত্যাশা বাংলাদেশ দলের। অনুশীলন শেষে এই প্রত্যাশাই জানান বাংলাদেশ দলের বাঁহাতি স্পিনার সানজিদা আক্তার মেঘলা, ‘সকালে যখন খেলি, বৃষ্টি ও কুয়াশা থাকে।  মাঠে ফিল্ড আরেকটু গ্রেসি থাকে। সেক্ষেত্রে লাঞ্চের পর যখন আমরা খেলবো, উইকেট আলাদা থাকবে, রোদ থাকবে। আশা করা যায় তখন উইকেট একটু ফ্ল্যাট হবে।’