রোববার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকায় মলম পার্টি চক্রের ২ সদস্য গ্রেপ্তার

আপডেট : ০২ মে ২০২২, ০৫:০১ পিএম

মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকা থেকে মলম পার্টি চক্রের ২ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

সোমবার দুপুরে র‍্যাব-৪ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ( মিডিয়া) জিয়াউর রহমান চৌধুরী এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, গত ২০ মার্চ র‌্যাব-৪ এর একটি টহল দল পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকা থেকে মো. সরোয়ার হোসেন নামক এক ব্যক্তিকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে।

তাকে নিকটস্থ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিলে সে সুস্থ হয়ে উঠে। ভুক্তভোগীর জবানবন্দিতে জানা যায় যে, তিনি একজন প্রবাসী।

ঘটনার দিন সকাল সাড়ে ৮টায় শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে প্রাইভেটকারযোগে আব্দুল্লাহপুর বাসস্ট্যান্ড হয়ে খুলনার বাসে ওঠেন।

যাত্রাপথে একটি সংঘবদ্ধ মলম পার্টি চক্রের কয়েকজন সদস্য তাকে জোরপূর্বক চেতনানাশক ওষুধ মিশ্রিত বিস্কুট খাওয়ালে সে অজ্ঞান হয়ে যায় এবং এই সুযোগে মলম পার্টির সদস্যরা তার কাছে থাকা স্বর্ণ, হীরার আংটি, মোবাইলসহ অন্যান্য মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে পালিয়ে যায়। তার খোয়া যাওয়া জিনিসপত্রের আনুমানিক মূল্য প্রায় ১০ লক্ষ টাকা।

পরবর্তীতে ভুক্তভোগী র‌্যাব-৪ এর কাছে এ সংক্রান্তে একটি অভিযোগ দায়ের করে। যার প্রেক্ষিতে স্থানীয় সোর্স এবং র‌্যাবের গোয়েন্দা দলের অনুসন্ধানের ভিত্তিতে জানতে পারা যায় যে, মলম পার্টি চক্রের কয়েকজন সদস্য ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে পুনরায় পাটুরিয়া ঘাট এলাকায় অবস্থান করছে। এরূপ সংবাদের ভিত্তিতে গত (৩০ এপ্রিল) র‌্যাব-৪ এর একটি অভিযানিক দল মানিকগঞ্জ জেলার শিবালয় থানাধীন পাটুরিয়া ঘাট এলাকায় অভিযান চালিয়ে দুইজন মলম পার্টি চক্রের সক্রিয় সদস্যকে গ্রেপ্তার করে।

পরবর্তীতে গ্রেপ্তারকৃত আসামিদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে রাজধানীর কোতোয়ালি থানার তাঁতীবাজার এলাকা হতে ১ জোড়া স্বর্ণের রুলি, ১টি স্বর্ণের চেইন, ১ জোড়া স্বর্ণের কানের দুল, ১টি স্বর্ণের আংটি উদ্ধার করে র‌্যাব সদস্যরা।

তিনি আরও জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তিরা মলম পার্টি চক্রের সক্রিয় সদস্য মর্মে স্বীকারোক্তি প্রদান করেছে। এই চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে পলাতক আসামিদের যোগসাজশে যাত্রীর ছদ্মবেশে দুর পাল্লার পরিবহন বাসে উঠে সাধারণ যাত্রীদের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তোলে কৌশলে চেতনানাশক ওষুধ মিশ্রিত বিস্কুট, পানি পান করিয়ে যাত্রীদের সর্বস্ব লুট করে নেয়।

জিজ্ঞাসাবাদে আরও জানা যায়, পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরে বিপুলসংখ্যক যাত্রী পাটুরিয়া ঘাট দিয়ে দক্ষিণবঙ্গে যাতায়াত করে বিধায় তারা পুনরায় সাধারণ মানুষকে চেতনানাশক প্রয়োগ করে সর্বস্ব লুট করার উদ্দেশ্যে পাটুরিয়া ঘাট এলাকায় অবস্থান করছিল।

উপরোক্ত বিষয়ে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন বলে জানান র‍্যাবের এই কর্মকর্তা।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত