বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

বিশ্বখ্যাত ব্র্যান্ডের কাছে পোশাকের উপযুক্ত মূল্য চান বাণিজ্যমন্ত্রী

আপডেট : ২৫ জানুয়ারি ২০২৩, ০৮:৩২ পিএম

বাংলাদেশের পোশাকের ক্রয় বৃদ্ধি ও উপযুক্ত মূল্য নিশ্চিতের আহ্বান জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। একই দাবি জানান প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান।

বুধবার বিশ্বখ্যাত তৈরি পোশাক ব্র্যান্ড প্রাইমার্ক অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে মতবিনিময়ে এ আহ্বান জানান তারা।

সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে যুক্তরাজ্য ভিত্তিক প্রাইমার্কের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা পাউল মার্চেন্ট নেতৃত্বাধীন দলের সঙ্গে বৈঠক করেন টিপু মুনশি ও সালমান এফ রহমান।

বৈঠকে দেশের পোশাকশিল্প নিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ বর্তমানে দ্বিতীয় বৃহত্তম তৈরি পোশাক রপ্তানিকারক দেশ। ৪০ লাখের বেশি শ্রমিক এ শিল্পে কর্মবান্ধব পরিবেশে কাজ করছে, যার প্রায় ৬৫ ভাগই নারী। গত বছর বাংলাদেশ ৪ হাজার ২০০ কোটি ডলার মূল্যের তৈরি পোশাক রপ্তানি করেছে, ২০৩০ সালে ১০ হাজার কোটি ডলার রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে আমরা কাজ করছি।

তিনি জানান, বাংলাদেশ এখন চাহিদা মোতাবেক যেকোনো পরিমাণ পণ্য যথাসময়ে সরবরাহ করার সক্ষমতা অর্জন করেছে।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, প্রাইমার্ক আমাদের বড় ক্রেতা, বিশ্বখ্যাত এ পোশাক ব্র্যান্ড বাংলাদেশ থেকে আরো তৈরি পোশাক ক্রয় করবে বলে বিশ্বাস করি। একইসঙ্গে এ শিল্পকে টিকিয়ে রাখতে, জড়িত জনবলকে উৎসাহ দিতে উপযুক্ত মূল্য নিশ্চিত করা প্রয়োজন।

এ খাতে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত দক্ষ কর্মীরা কাজ করছে উল্লেখ করে টিপু মুনশি বলেন, শিল্প বিকাশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় দেশের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ১০০ স্পেশাল ইকোনমিক জোন গড়ে তোলার কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। অনেকগুলো এখন শেষ পর্যায়ে। আগামী ২০২৬ সালে বাংলাদেশ এলডিসি গ্রাজুয়েশন করবে, তখন বিভিন্ন দেশ থেকে বাণিজ্য সুবিধা পেতে পিটিএ বা এফটিএর মতো বাণিজ্য চুক্তি করার জন্য আমরা কাজ করছি।

বৈঠকে সালমান এফ রহমান বলেন, প্রতিযোগিতামূলক বিশ্ববাণিজ্যে বাংলাদেশ দক্ষতার সঙ্গে এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশ বিগত যেকোনো সময়ের চেয়ে বর্তমানে বিশ্বমানের ও আধুনিক তৈরি পোশাক তুলনামূলক কম দামে সরবরাহ করতে সক্ষম।

এ সময় প্রাইমার্কের সিইও পাউল মার্চেন্ট বলেন, বাংলাদেশ বাণিজ্য ক্ষেত্রে আমাদের কাছে খুব গুরুত্বপূর্ণ। গ্রিন ফ্যাক্টরিতে কর্মবান্ধব পরিবেশে পোশাক উৎপাদন করছে। শিল্পক্ষেত্রে প্রযুক্তির ব্যবহার আরো বেশি আকর্ষণীয় করেছে।

প্রতিনিধিদলের অন্যরা হলেন- এবিএফের পরিচালক ও কোম্পানি সেক্রেটারি পাউল লিস্টার, গ্রুপ করপোরেট রেসপনসিবিলিটি ডাইরেক্টর কাথারিন স্টিওয়ার্ট, ইকোলক বোর্ডের নির্বাহী চেয়ারম্যান জুয়ান চাপারো, প্রাইমার্কের হেড অব পলিসি অ্যান্ড পাবলিক অ্যাফেয়ার্স ইম্মা অরমন্ড, হেড অব সোর্সিং মাদিউ আরহোডস এবং বেক্সিমকো বাংলাদেশ লিমিটেড গ্রুপের পরিচালক এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ নাভেদ হোসেইন।

পরে নিজ অফিস কক্ষে জাপান এক্সটার্নাল ট্রেড অর্গানাইজেশনের (জেট্রো) প্রেসিডেন্ট কাজুশিক নোবুতানির নেতৃত্বে আসা প্রতিনিধিদলের সঙ্গে মতবিনিময় করেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত