সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

১০ জনের প্রতিপক্ষের বিপক্ষে কষ্টার্জিত জয়ে নাখোশ জাভি

আপডেট : ৩১ মার্চ ২০২৪, ০৪:৪২ পিএম

গোলপোস্ট আর রক্ষণে বার্সেলোনা দারুণ ফর্মে আছে। টানা পাঁচ ম্যাচ প্রতিপক্ষকে কোনো গোল করতে দেয়নি তারা। সবশেষ লাস পালমাসকে ব্যর্থ করেছে কাতালান জায়ান্টরা। কিন্তু ১-০ গোলের জয়ে তুষ্ট নন কোচ জাভি হার্নান্দেজ। 

কারণ আধঘণ্টা হওয়ার আগেই প্রতিপক্ষ ১০ জনের দলে পরিণত হয়েছিল। তারপরও গোল বেশি করতে পারেনি বার্সা। 

এস্তাদি অলিম্পিক লুইস কম্পানিসের বৃষ্টিস্নাত ম্যাচে বলের দখলে আধিপত্য ধরে রাখে। ৩৫তম মিনিটে লেভানডোভস্কি লিড এনে দিতে পারতেন। কিন্তু তার হেড বারে লাগে।

বিরতির মিনিটখানেক আগে ফারমিন লোপেজের শট গোলপোস্ট ঘেষে বেরিয়ে যায়। রাফিনহাও একইভাবে সুযোগ নষ্ট করেন। 

মাঠে নামার তিন মিনিট পর বার্সার একমাত্র গোলে অবদান রাখেন জোয়াও ফেলিক্স। ৫৯তম মিনিটে তার দারুণ ক্রসে জাল কাঁপান রাফিনহা।

৬৮তম মিনিটে একেবারে গোলমুখের সামনে থেকে বারে আঘাত করেন ফেলিক্স।

এমন কষ্টার্জিত জয়ের পর জাভি হার্নান্দেজ বলেছেন, ‘আমাদের আরও বেশি গোলে জেতা উচিত ছিল। ম্যাচ শেষ করে দেওয়ার পরিষ্কার কয়েকটি সুযোগ পেয়েছিলাম। আমরা খেলেছি ১০ জনের বিরুদ্ধে এবং অনেক সুযোগ তৈরি করেছিলাম। সুতরাং আমি মনে করি না এক গোল যথেষ্ট ছিল।’

শেষ ৯ লা লিগা ম্যাচে সপ্তম জয় পেলো বার্সেলোনা। ৩০ ম্যাচে ৬৭ পয়েন্ট তাদের। রিয়াল মাদ্রিদ এক ম্যাচ বেশি খেলে ৭২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে।

বার্সেলোনার দুই ফরোয়ার্ড রবার্ট লেভানডোফস্কি ও রাফিনহা শুরুতেই গোল করলেও বিল্ডআপের সময় অফসাইডের কারণে তা বাতিল হয়। লাস পালমাস ২৪তম মিনিটে ১০ জনের দল হয়ে যায়। এগিয়ে আসা রাফিনহাকে থামাতে গিয়ে ফাউল করেন গোলকিপার আলভারো ভায়েস। তাকে লাল কার্ড দেখানো হয়। গোলকিপার অ্যারন এস্কান্ডেলকে জায়গা করে দিতে দলটির একমাত্র ফরোয়ার্ড মুনির মাঠ ছাড়েন।

আগামী মাসে চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে প্যারিস সেন্ট জার্মেইর মুখোমুখি হবে বার্সেলোনা। তার আগে জিতে প্রস্তুতি শেষ করলো তারা। 

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত