শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ঝাঁকুনিতে আহত বিমান যাত্রীদের ক্ষতিপূরণ দেবে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স

  • আহত যাত্রীদের ১০ হাজার ও গুরুত্বর আহতদের ২৫ হাজার ডলার দেবে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স
  • যাত্রীদের কি পরিমাণ ক্ষতিপূরণ লাগবে সে বিষয়ে আলোচনা করতে চায় সংস্থাটি
আপডেট : ১১ জুন ২০২৪, ০১:০৩ পিএম

গত ২১ মে লন্ডন থেকে রওনা দেওয়া সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের একটি বিমান মাঝ আকাশে প্রচণ্ড টার্বুলেন্স বা ঝাঁকুনির কবলে পড়লে একজন যাত্রীর মৃত্যু হয় এবং আরও অন্তত ৩০ জন আরোহী গুরুতর আহত হন।

মাঝ আকাশে তীব্র ঝাঁকুনিতে আহত হওয়া যাত্রীদের আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স। মঙ্গলবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেওয়া এক পোস্টে এই তথ্য জানিয়েছে সংস্থাটি। খবর বিবিসির।

সামাজিক মাধ্যমে দেয়া পোস্টে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স জানিয়েছে, ‘বিমানের ঝাঁকুনিতে যেসব যাত্রীরা সামান্য আহত হয়েছিলেন তাদের ১০ হাজার মার্কিন ডলার দেয়া হবে। অন্যদিকে যেসব যাত্রীরা গুরুতর আহত হয়েছিলেন তাদের তাৎক্ষণিক প্রয়োজন মেটাতে ২৫ হাজার ডলার অগ্রিম দেয়া হচ্ছে।‘

এ ছাড়া ওই বিমানের যাত্রীদের এই ধাক্কা সামলে উঠতে ঠিক কী পরিমাণ অর্থ লাগবে তা নিয়ে আলোচনার জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছে সংস্থাটি।

ঠিক কতজন যাত্রীকে ক্ষতিপূরণের এই অর্থ দেওয়া হবে, সে বিষয়ে আরও তথ্যের জন্য বিবিসির পক্ষ থেকে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। তবে তারা এখনো কোনো জবাব দেয়নি।

গত ২১ মে মাঝ আকাশে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সেরে একটি বিমানে হঠাৎ প্রচণ্ড টার্বুলেন্স বা ঝাঁকুনির ঘটনায় এক যাত্রী নিহত এবং শতাধিক যাত্রী আহত হয়। বিমানটি লন্ডন থেকে সিঙ্গাপুরে যাওয়ার কথা থাকলেও এই ঘটনার পর থাইল্যান্ডে জরুরি অবতরণ করতে হয়।

সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স তখন জানায়, বিমানটিতে ২১১ জন যাত্রী এবং ১৮ জন ক্র ছিলেন। যাত্রী নিহতের ঘটনায় এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করে।

এ ঘটনার প্রাথমিক তদন্তে দেখা গেছে, বিমানটি দ্রুত উপরে ও নিচে উঠা-নামা করে। এমনকি মাত্র ৪ দশমিক ৬ সেকেন্ডের মধ্যে প্রায় ১৭৮ ফুট নিচে নেমে যায়। ফলে যারা সিটবেল্ট পরেনি তারা বিমানের ভেতরে উড়তে থাকেন এবং চারপাশে ধাক্কা লেগে আঘাতপ্রাপ্ত হন।

সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স জানিয়েছে যে, যাত্রীরা ইউরোপীয় ইউনিয়ন বা যুক্তরাজ্যের আইন অনুযায়ী ক্ষতিপূরণ পাবেন। আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী, বিমানে যাত্রীরা আহত বা মারা গেলে এয়ারলাইন্সগুলোকে অবশ্যই যাত্রীদের ক্ষতিপূরণ দিতে হয়।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত