বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

যৌন হয়রানি ও ধর্ষণবিরোধী পোস্টার প্রদর্শনী

আপডেট : ২৬ নভেম্বর ২০১৮, ০৭:৪৯ পিএম

আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বিশ্ব মানবাধিকার দিবসের দ্বিতীয় দিন সোমবার যৌন হয়রানি ও ধর্ষণবিরোধী পোস্টার প্রদর্শনী ও আলোচনা সভার আয়োজন করে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সোপার্জিত স্বাধীনতা চত্বরে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন হয়।

এতে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সভাপতি আয়শা খানম। প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। ঢাবি গবেষণা সংসদ ‘বাংলাদেশের নারী’ শিরোনামে এই পোস্টার প্রদর্শনীর আয়োজন করে।

এ সংগঠনের দেওয়া তথ্য মতে, দেশে ৯০ ভাগ নারী নির্যাতনের শিকার হন। এদের ৫১ শতাংশ নিজ পরিবারেই নির্যাতনের শিকার। দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে নারী নির্যাতনের হার বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি বলে জানায় সংগঠনটি।

আয়শা খানম তার বক্তব্যে বলেন, অর্থনৈতিক মুক্তি হতে পারে নির্যাতন প্রতিরোধের হাতিয়ার। নারীর প্রতি অবহেলা আসে সংকীর্ণ মনমানসিকতা থেকে।

তিনি সরকার ও প্রশাসনের সমালোচনা করে বলেন, রাষ্ট্রের দ্বারস্থ হওয়ার পরও নারী বিচার পায় না। সরাসরি না করলেও অবকাঠামোর দিক থেকে এই নির্যাতন রাষ্ট্রের মাধ্যমেও হচ্ছে।

ঢাবি উপাচার্য আখতারুজ্জামান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় এরকম অনুষ্ঠানের ভেন্যু হোক সবসময়। বিশ্ববিদ্যালয়ে যৌন হয়রানি প্রতিরোধ সেল আছে। শিক্ষার্থীদের সংগঠনেরও বড় এজেন্ডা হওয়া উচিত নারী নির্যাতনের মতো একটি বিষয়, যা আমাদের সামাজিক সভ্যতা বিকাশের অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ঢাবির অধ্যাপক ড. নাসরিন আহমেদ বলেন, কক্সবাজারে ছোট ছোট মেয়েরা সার্ফিং করছে এটা দেখতে যেমন আনন্দ হয়, একই সঙ্গে বাচ্চা মেয়েরা শারীরিক নির্যাতনেরও শিকার হচ্ছে।

আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন- ঢাবির ডিবেটিং সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আসাদ। ঢাবির কালচারাল সোসাইটির নারী নির্যাতন দূরীকরণের গীতিনাট্য প্রদর্শনীর মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি শেষ হয়।

২৫ নভেম্বর থেকে শুরু হয়ে আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বিশ্ব মানবাধিকার দিবস ১০ ডিসেম্বর পর্যন্ত পালিত হবে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত