শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

নম্বর কম দেওয়ার অভিযোগ খুবির স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত ছাত্রীর

আপডেট : ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০১:৪১ এএম

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে (খুবি) স্নাতকোত্তরে থিসিসে নম্বর কম দেওয়ার অভিযোগ তুলেছেন স্নাতকে প্রথম স্থান অর্জনকারী ও প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক পাওয়া ইংরেজি বিভাগের এক ছাত্রী। গত রবিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বরাবর লিখিত অভিযোগ দেন তিনি।

অভিযোগে ইংরেজি বিভাগের মাস্টার্সের ১৮তম ব্যাচের ছাত্রী তুশমিত মেহেরুবা আঁকা বিভাগীয় প্রধান ড. আহমেদ আহসানুজ্জামানের বিরুদ্ধে ইচ্ছাকৃত নম্বর কম দিয়ে দ্বিতীয় স্থানে অবনমনের কথা তুলে ধরেন। অভিযোগকারী বলেন, থিসিসের মাঝপথে আহসানুজ্জামান কমিটিতে ইন্টার্নাল হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হন। সুপারভাইজার, এক্সটার্নাল, ইন্টার্নালসহ সবার নির্দেশনা অনুযায়ী থিসিস জমা দেওয়া সত্ত্বেও ইচ্ছাকৃতভাবে কম নম্বর দেওয়া হয়। গত ২৪ জানুয়ারি মাস্টার্সের প্রকাশিত চূড়ান্ত ফলাফলে দুই টার্ম মিলিয়ে ৩ দশমিক ৪৭ জিপিএ অর্জন করেন আঁকা। একই বিভাগ থেকে স্নাতকে ৩ দশমিক ৫৯ জিপিএ পেয়ে তিনি প্রথম হয়েছিলেন। এই ফলের জন্য ২০১৮ সালে তিনি প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদকও লাভ করেন।

আঁকা বলেন, ‘মাস্টার্সে আমি যেন প্রথম স্থান অধিকার করতে না পারি এজন্য ইচ্ছাকৃতভাবে থিসিস সমাপ্তের পর ইন্টার্নাল পরিবর্তন করে নম্বর কম দেওয়া হয়।’ এ বিষয়ে আঁকার থিসিসের সুপারভাইজার সাবিহা হক বলেন, ‘আমি অভিযোগের বিষয়ে জেনে তারপর মন্তব্য করব।’ রেজিস্ট্রার অধ্যাপক রুহুল কুদ্দুস বলেন, ‘আঁকার লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযুক্ত শিক্ষক ড. আহসানুজ্জামানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ব্যস্ত জানিয়ে ফোন রেখে দেন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত