মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

রানীনগরে সেচের পানি দ্বিগুণ টাকায় কিনছেন চাষিরা

আপডেট : ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:৫৮ এএম

নওগাঁর রানীনগরে চলতি ইরি মৌসুমের শুরুতেই গভীর নলকূপের পানি সেচের জন্য পানির দাম নির্ধারণ করার পরেও দ্বিগুণ টাকায় পানি কিনতে হচ্ছে চাষিদের। এতে গভীর নলকূপের আওতায় কৃষকরা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা করছেন। অপরদিকে লাভবান হচ্ছেন এই গভীর নলকূপের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কতিপয় ব্যক্তি।

সরেজমিনে উপজেলার বিভিন্ন মাঠে গিয়ে জানা যায়, বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্র্তৃপক্ষ (বিএমডিএ) তাদের আওতাধীন গভীর নলকূপের পানির দাম নির্ধারণ করেছে প্রতি ঘণ্টা ১২৫ টাকা অথবা পুরো মৌসুম মিলে ১ হাজার ২৫০ টাকা। এসব নলকূপের দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিরা নির্ধারিত পানির দাম গোপন করে কৃষকদের কাছ থেকে ১ হাজার ৮শ’ থেকে ২ হাজার ৫ শ’ টাকা গ্রহণ করছেন বলে জানা গেছে। প্রতি বিঘায় ৫শ’ থেকে সাড়ে ১২শ’ টাকা অতিরিক্ত নেওয়া হচ্ছে। এতে করে কৃষকরা লোকসানের মুখে পড়বেন বলে আশঙ্কা করছেন অনেকেই। গভীর নলকূপের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান, কৃষকদের কাছ থেকে দ্বিগুণ নয়, ২-৪ শ’ টাকা বেশি নেওয়া হচ্ছে। কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে চলতি মৌসুমে প্রায় ১৯ হাজার হেক্টর জমিতে ইরি-বোরো ধান চাষ করা হচ্ছে। চলতি মৌসুমে মোট ২ হাজার ২৩৬টি গভীর ও অগভীর নলকূপ থেকে সেচ প্রদান করা হচ্ছে। গভীর নলকূপ রয়েছে ৪০৬টি, এর মধ্যে ২৬২টি রয়েছে বিএমডিএর আওতায়। বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্র্তৃপক্ষের রানীনগর শাখার সহকারী প্রকৌশলী ও উপজেলা সেচ কমিটির সদস্য সচিব তিতুমীর রহমান বলেন, এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত