শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

‘গোলাম আযমের আত্মীয়’কে আওয়ামী লীগের প্রার্থী করার অভিযোগ

আপডেট : ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৪:৪৩ পিএম

প্রথমবারের মতো নির্বাচিত হওয়ার অল্পদিনেই বিতর্কে জড়ালেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ আসনের সংসদ সদস্য এবাদুল করিম বুলবুল। তার বিরুদ্ধে জামায়াতের সাবেক আমির ও মানবতাবিরোধী অপরাধে দণ্ডপ্রাপ্ত গোলাম আযমের আত্মীয় হাবিবুর রহমান স্টিফেনকে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী করার অভিযোগ উঠেছে।

শনিবার সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে কয়েকজন উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী এ অভিযোগ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে হাবিবুর রহমান স্টিফেনকে 'ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা' ও যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী 'দ্বৈত নাগরিক' উল্লেখ করে অভিযোগ করা হয়, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী বাছাইয়ে স্থানীয় এমপি দলের গঠনতন্ত্র না মেনে স্বেচ্ছাচারিতা করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও জেলা যুবলীগের বর্তমান সভাপতি, সাবেক ভিপি, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সিরাজুল ইসলাম ফেরদৌস। এ সময় তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী, সাবেক এমপি কাজি আকবর উদ্দিন সিদ্দিকের ছেলে, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপকমিটির সহসম্পাদক কাজি জহির উদ্দিন সিদ্দিক টিটু প্রমুখ।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, নবীনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাবেক এমপি ফয়জুর রহমান বাদল বিদেশে থাকার সুযোগ নিয়ে, তাকে না জানিয়ে ২৮ জানুয়ারি কৌশলে উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা ডাকেন স্থানীয় সংসদ সদস্য এবাদুল করিম বুলবুল। ওই বৈঠকে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মতামত বা ভোট না নিয়ে তিনি সুকৌশলে প্রার্থী বাছাইয়ের সিদ্ধান্তের ক্ষমতা তার পক্ষে নিয়ে নেন। পরবর্তীতে জেলা আওয়ামী লীগ, উপজেলা আওয়ামী লীগ বা তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মতামত না নিয়ে হাবিবুর রহমান স্টিফেনকে একক প্রার্থী হিসাবে কেন্দ্রে সুপারিশ পাঠান এবাদুল করিম।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাসহ স্থানীয় সরকার নির্বাচন প্রার্থী বাছাই বোর্ড বরাবর লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। 

অন্যদিকে, হাবিবুর রহমান স্টিফেন জানান, আমার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলনে যা বলা হয়েছে তা বিরোধিতার খাতিরে বিরোধিতা। মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয় কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে বলেছে আমি প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা।

তবে সংসদ সদস্য এবাদুল করিম বুলবুলকে বারবার চেষ্টা করেও মোবাইলে কথা বলা যায়নি।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত