সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

১৫ এপ্রিলের মধ্যে ভাসানচর যাচ্ছে ১ লাখ রোহিঙ্গা

আপডেট : ০৩ মার্চ ২০১৯, ১১:৫১ পিএম

আগামী ১৫ এপ্রিলের মধ্যে প্রায় এক লাখ রোহিঙ্গা নোয়াখালীর ভাসানচরে স্থানান্তর করা হবে বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান।

রবিবার সচিবালয়ে মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল মিলারের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান তিনি। তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের জন্য নতুন করে সাড়ে ১০ কোটি মার্কিন ডলার সহায়তা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। এ অর্থে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য জীবন রক্ষাকারী খাবারের সংস্থান করা হবে।

ভাসানচরে আবাসন, বিদ্যুৎ, যোগাযোগ, স্বাস্থ্যসেবা, বেড়িবাঁধ ও সাইক্লোন শেল্টার প্রস্তুত হয়েছে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, গত সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রী আমাদের নির্দেশ দিয়েছেন ১৫ এপ্রিলের মধ্যে প্রতি পরিবারের ৫ জন করে ২৩ হাজার পরিবারকে ভাসানচরে সরিয়ে নিতে হবে।

রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার সাংবাদিকদের বলেন, রোহিঙ্গাদের জন্য বিশ্ব খাদ্য সংস্থাকে আজ আমরা ৪৫ দশমিক পাঁচ মিলিয়ন ডলার সহায়তা দিচ্ছি। ২০১৯ সালে আমরা মোট ১০৫ মিলিয়ন ডলার সহায়তা দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছি। এছাড়া ২০১৭-এর আগস্ট থেকে এ পর্যন্ত রোহিঙ্গাদের জন্য আমরা ৫০০ মিলিয়ন ডলার সহায়তা দিয়েছি।

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নির্যাতন থেকে বাঁচতে বিভিন্ন সময় বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গার সংখ্যা প্রায় ১১ লাখ। যারা কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফ উপজেলায় বাস করছেন। এখানকার চাপ কমাতে সরকার নোয়াখালীর হাতিয়ার ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের পুনর্বাসনের সিদ্ধান্ত নেয়। প্রাথমিকভাবে এক লাখ রোহিঙ্গার পুনর্বাসনের জন্য ২ হাজার ৩১২ কোটি টাকার একটি প্রকল্প নেওয়া হয়।

প্রকল্পের অধীনে চরের ভূমি উন্নয়ন ও তীররক্ষা বাঁধ নির্মাণ, থাকছে এক হাজার ৪৪০টি ব্যারাক হাউস। আরও থাকবে ১২০টি শেল্টার স্টেশন, মসজিদ, দ্বীপটির নিরাপত্তার জন্য নৌবাহিনীর অফিস ভবন ও কর্মকর্তাদের জন্য বাসভবন। থাকছে অভ্যন্তরীণ সড়ক,পানি সরবরাহ ও নিষ্কাশন অবকাঠামো নির্মাণের পাশাপাশি প্রকল্প এলাকায় থাকবে নলকূপ ও পুকুর। চলতি বছরের নভেম্বরের মধ্যে এর কাজ পুরোপুরি শেষ হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত