মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

সর্বনাশা ‘চায়না দুয়ারি’তে বিলুপ্ত হচ্ছে দেশি মাছ

আপডেট : ০৩ অক্টোবর ২০২১, ১১:৪১ পিএম

কয়েক বছর ধরে ফরিদপুরের নদনদী ও বিল-বাঁওড়গুলোতে অবাধে ব্যবহার হচ্ছে মাছ ধরার বিশেষ ফাঁদ ‘চায়না দুয়ারি।’ বিশেষভাবে তৈরি এ জালে আটকে যায় সব ধরনের জলজ প্রাণী। মাছের ক্ষুদ্র পোনাও এর হাত থেকে রেহাই পায় না। সর্বনাশা এ ফাঁদের কবলে পড়ে দিন দিন বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে দেশীয় বিভিন্ন মাছ। ফরিদপুরের বিভিন্ন বাজারে অবাধে বিক্রি হচ্ছে চায়না দুয়ারি ফাঁদ।

স্থানীয়রা জানান, লোহার রড়ের গোলাকার কিংবা চতুর্ভুজ কাঠোমোর চারপাশে চায়না জাল দিয়ে ফাঁদ তৈরি করা হয় বলে এর নাম ‘চায়না দুয়ারি।’ ফাঁদটি ৫২ থেকে ৭০ হাত ইত্যাদি বিভিন্ন দৈর্ঘ্যরে হয়। মাছ শিকারের এই ফাঁদ দিয়ে ফরিদপুরের পদ্মা, মধুমতী, আড়িয়ালখাঁ, ভুবনেশ^র, কুমারসহ বিভিন্ন বিল-বাঁওড়ে কিছু অতিলোভী মাছ শিকারি নির্বিঘেœ দেশীয় প্রজাতির ছোট-বড় সব ধরনের মাছ ধরছে। এমনকি মাছের যেসব ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র পোনা খাওয়া হয় না সেগুলোও ধরা পড়ে মারা যাচ্ছে।

ফরিদপুর সদর উপজেলার ডিক্রিরচর, নর্থচ্যানেল, চরমাধবদিয়া গিয়ে দেখা যায়, বাজারে বিক্রি হচ্ছে চায়না দুয়ারি ফাঁদ দিয়ে ধরা দেশীয় প্রজাতির বিভিন্ন মাছের পোনা। আর মরে যাওয়া ক্ষুদ্র পোনাগুলো ফেলে দেওয়া হচ্ছে।

স্থানীয়রা আরও জানান, এই দুয়ারি নদীর পানিপ্রবাহে বাধার সৃষ্টি করে, এর জালের ছিদ্র ছোট হওয়ায় ছোট বড় কোনো মাছ বের হওয়ার সুযোগ পায় না। ফলে মাছের বংশবিস্তারে বিঘœ ঘটছে। ডিক্রিরচর ইউনিয়নের নমোডাঙ্গী এলাকার মোজাফফর নামের এক মাছ শিকারি জানান, চায়না দুয়ারি নদীর তলদেশে বসানো হয়। উভয় দিক থেকে ছুটে চলা যেকোনো মাছ সহজেই এতে আটকা পড়ে। একবার মাছ ঢুকে পড়লে ফাঁদ থেকে বের হওয়ার আর সুযোগ পায় না। 

ফরিদপুর শহরের ব্যবসায়ী সনজীব দাস বলেন, পদ্মার পাড়ে সকালে মাছ কিনতে গেলে দেখা যায় লিটা মাছের বাচ্চা (পোনা) বিক্রি হচ্ছে। এই চায়না দুয়ারি এসে আমাদের দেশি মাছের বংশ শেষ করে দিচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে হয়তো একদিন দেশীয় মাছ আমরা আর পাব না।

এ বিষয়ে ফরিদপুর জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম বলেন, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তাদের কঠোর নির্দেশনা দিয়েছি ‘চায়না দুয়ারি’ ফাঁদ প্রতিরোধ করতে। ইতিমধ্যে জেলার বেশ কয়েকটি বাজারে চায়না দুয়ারি জব্দ করতে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে এবং এটা অব্যাহত থাকবে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত