সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

গাজায় স্থায়ী যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব বাইডেনের, যা বলছে হামাস ও ইসরায়েল

  • গাজায় শান্তি স্থাপনে তিন স্তরের যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব প্রকাশ করলেন জো বাইডেন
  • বাইডেনের প্রস্তাবকে ‘ইতিবাচক হিসেবে বিবেচনা’ করার কথা জানিয়েছে হামাস
আপডেট : ০১ জুন ২০২৪, ০৩:৫০ পিএম

গত বছরের অক্টোবর থেকে শুরু করে প্রায় আটমাস ধরে ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ ভূখণ্ড গাজাতে নির্বিচারে বিমান হামলা, স্থল অভিযানের মাধ্যমে গণহত্যা চালাচ্ছে দখলদার দেশ ইসরায়েল।

বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন দেশ যুদ্ধ থামানোর আহ্বান জানালেও গাজায় ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরায়েলি আগ্রাসনে বরাবরই ইসরায়েলের পাশে থেকেছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে এবার ইসরায়েল-হামাস যুদ্ধ বন্ধ করতে পদক্ষপ নিয়েছে দেশটি।  

গাজা উপত্যকায় শান্তি স্থাপনের জন্য এই প্রথম সুনির্দিষ্টভাবে একটি পরিকল্পনার প্রস্তাব করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। শুক্রবার রাজধানী ওয়াশিংটনে দেওয়া এক ভাষণে এই প্রস্তাব পেশ করেছেন তিনি।

শনিবার এ খবর প্রকাশ করেছে বিবিসি, রয়টার্স, আল জাজিরাসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি জানায়, গাজায় যুদ্ধবিরতির ক্ষেত্রে বাইডেনের প্রস্তাবিত পরিকল্পনায় ৩টি স্তর বা পর্যায় রয়েছে। যেখানে প্রথম ধাপে ছয় সপ্তাহের যুদ্ধবিরতি হবে এবং গাজার জনবহুল এলাকা থেকে ইসরায়েলি সৈন্যদের সরিয়ে নেয়া হবে।

সেখানে মানবিক সহায়তা প্রদান করা হবে এবং একই সাথে দুপক্ষের মধ্যে বন্দি এবং জিম্মি বিনিময় হবে। এই চুক্তিটি শেষ পর্যন্ত দুপক্ষের মধ্যে দীর্ঘমেয়াদী শত্রুতা বন্ধ এবং গাজায় বড় ধরণের পুনর্গঠনের দিকে এগিয়ে যাবে।

শুক্রবার হোয়াইট হাউজে দেয়া বক্তব্যে বাইডেন বলেন, এটা আসলেই একটি সিদ্ধান্ত নেয়ার সময়। হামাস সবসময় বলে তারা যুদ্ধ বিরতি চায়। তাহলে তারা এই চুক্তি মানে কী না সেই বক্তব্য প্রমাণ করার এটি একটি সুযোগ।

তিনি আরও বলেন, ‘এই যুদ্ধবিরতি গাজায় প্রতিদিন ৬০০ ট্রাক মানবিক সহায়তা নিয়ে যাওয়াসহ, বিপর্যস্ত অঞ্চলগুলোতে আরো মানবিক সহযোগিতা পৌঁছানোর অনুমতি দেবে।‘

এই চুক্তির দ্বিতীয় ধাপে পুরুষ সৈন্যসহ সব জীবিত জিম্মিদের ফিরিয়ে আনা হবে। এই যুদ্ধবিরতি তখন স্থায়ীভাবে দীর্ঘ শত্রুতার অবসান ঘটাবে।

এছাড়া প্রস্তাবের তৃতীয় ধাপে গাজায় মৃত ইসরায়েলি জিম্মিদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে আনার হবে এবং গাজায় ধ্বংস হওয়া ঘরবাড়ি, স্কুল এবং হাসপাতাল পুনর্নির্মাণের জন্য মার্কিন এবং আন্তর্জাতিক সহায়তার মাধ্যমে একটি "পুনর্গঠন পরিকল্পনা" করা হবে।

এদিকে গাজায় স্থায়ী যুদ্ধবিরতি জন্য বাইডেনের প্রস্তাবিত পরিকল্পনাকে ‘ইতিবাচক হিসেবে বিবেচনা’ করার কথা জানিয়েছে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সশস্ত্র সংগঠন হামাস। শুক্রবার এক বিবৃতিতে সংগঠনটি জানায়, ‘স্থায়ী যুদ্ধবিরতি প্রতিষ্ঠা, গাজা থেকে ইসরায়েলি সেনা প্রত্যাহার এবং এ উপত্যকার পুনর্গঠন ও বন্দী বিনিময়’ নিয়ে বাইডেনের বক্তব্যকে ইতিবাচকভাবে দেখছে তারা।

এদিকে কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল জাজিরা জানিয়েছে যে, বাইডেনের গাজায় যুদ্ধবিরতির তিন স্তরের প্রস্তাবে প্রাথমিকভাবে সম্মত হয়েছে ইসরায়েল।

এক বিবৃতিতে বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর কার্যালয় জানিয়েছে যে, ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী গাজায় বন্দিদের মুক্তির লক্ষ্যে যুদ্ধবিরতির একটি প্রস্তাব পেশ করার" জন্য দেশটির আলোচনাকারী দলকে অনুমোদন দিয়েছেন।‘

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত