বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ক্রিমিয়ায় ইউক্রেনের হামলা, যুক্তরাষ্ট্রকে রাশিয়ার হুমকি

আপডেট : ২৪ জুন ২০২৪, ০৮:৩৮ পিএম

ক্রিমিয়া উপদ্বীপের সেভাস্তোপলে ইউক্রেনের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করছে রাশিয়া। গতকাল রবিবারের এ হামলার পর আজ সোমবার ক্রেমলিন হুমকি দিয়ে বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রকে এর ‘পরিণাম ভোগ করতে হবে’। একই সঙ্গে মস্কোতে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে তলব করা হয়েছে।

রবিবারের ওই হামলায় দুই শিশুসহ চারজন নিহত হয়েছেন। এছাড়া ক্ষেপণাস্ত্রের ধ্বংসাবশেষ কাছাকাছি একটি সৈকতে পড়ে যাওয়ায় আরও প্রায় ১৫০ জন আহত হয়েছেন।

ক্রিমিয়ার সবচেয়ে বড় শহর সেভাস্তোপল। এ হামলাকে ‘বর্বর’ বর্ণনা করে ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ আজ সোমবার সাংবাদিকদের বলেন, ওয়াশিংটন রাশিয়ার শিশুদের হত্যা করছে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণের ফলে রাশিয়ায় বেসামরিক নাগরিকদের প্রাণ দিতে হচ্ছে। তাদের (ওয়াশিংটনকে) অবশ্যই এর পরিণাম ভোগ করতে হবে। কীভাবে এর জবাব দেওয়া হবে, সেটা সময়ই বলে দেবে।

রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ক্রিমিয়ায় প্রাণঘাতী হামলার জেরে আজ সোমবার মস্কোয় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত লিনে ট্রেসিকে তলব করা হয়। পরে এ নিয়ে একটি বিবৃতি দিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তাতে বলা হয়েছে, ক্রিমিয়ায় এই হামলার জন্য কিয়েভের পাশাপাশি ওয়াশিংটনও সমানভাবে দায়ী। অবশ্যই এর জবাব দেওয়া হবে।

রাশিয়া জানিয়েছে, গতকাল রোববার ক্রিমিয়ার সেভাস্তোপল বন্দরে অ্যাটাকমস নামের ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে হামলা চালিয়েছে ইউক্রেন। ক্ষেপণাস্ত্রে গুচ্ছবোমাও ছিল। কিয়েভকে এই অস্ত্র দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। আর এই ক্ষেপণাস্ত্রগুলো মার্কিন বিশেষজ্ঞদের মাধ্যমে প্রোগ্রাম করা হয়েছিল।

২০১৪ সালে ইউক্রেনের ক্রিমিয়া উপদ্বীপ দখলে নেয় রাশিয়া। তবে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির কার্যালয়ের প্রধান আন্দ্রিই ইয়ারমাক বলেছেন, ক্রিমিয়া মানে ইউক্রেন। রাশিয়াকে অবশ্যই উপদ্বীপটি ছেড়ে যেতে হবে। সেখান থেকে তাদের সেনাবাহিনী ও সামরিক সরঞ্জাম সরিয়ে নিতে হবে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত