বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

অরাজনীতিকদের নির্বাচনী সরকারে প্রধানমন্ত্রীর না

আপডেট : ০৮ নভেম্বর ২০১৮, ০২:০০ পিএম

তত্ত্বাবধায়কের আদলে অরাজনীতিকদের নিয়ে নির্বাচনকালীন সরকারের প্রস্তাব না করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে বুধবার দ্বিতীয় দফা সংলাপে এই প্রস্তাব দেয় সরকারবিরোধী প্রধান রাজনৈতিক জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

সংলাপে উপস্থিত একাধিক আওয়ামী লীগ নেতা দেশ রূপান্তরকে জানিয়েছেন, দল নিরপেক্ষ ও নির্বাচনে অংশ নেবেন না এমন ১০ ব্যক্তিকে নিয়ে নির্বাচনকালীন সরকারের লিখিত প্রস্তাব দেয় ঐক্যফ্রন্ট। তবে এই প্রস্তাব নাকচ করেন প্রধানমন্ত্রী।

বিএনপিপ্রধান জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে দ্বিতীয় সংলাপে সরকারপক্ষে আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনাসহ ১১ জন অংশ নেন। ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের মধ্যে ছিলেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রবসহ ১০ জন।

image

পৌনে দুই ঘণ্টার এই সংলাপে ঐক্যফ্রন্টের প্রস্তাবের জবাবে আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দলের নেতারা বলেন, এ প্রস্তাব মানলে সাংবিধানিক শূন্যতা (সংকট) সৃষ্টি হবে। দল নিরপেক্ষ ব্যক্তিদের নির্বাচনকালীন সরকারে রাখলে তৃতীয় পক্ষ ঢুকে পড়ার সুযোগ রয়েছে।

তবে সংলাপে উপস্থিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা সুলতান মোহাম্মদ মনসুর দেশ রূপান্তরকে বলেন, আমাদের প্রস্তাব নাকচ হলেও সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য এর বিকল্প নেই।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে গত ১ নভেম্বর গণভবনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে প্রথম সংলাপ হয়। এতে সংসদ ভেঙে দেওয়া, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি, নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনসহ তাদের সাত দফা দাবি তুলে ধরে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। একই দাবিতে মঙ্গলবার সোহরাওয়ার্দীতে জনসভা করে তারা। জনসভায় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা বলেন, দ্বিতীয় দফা সংলাপে দাবি না মানলে রোডমার্চ, নির্বাচন কমিশন অভিমুখে পদযাত্রাসহ আন্দোলনের কর্মসূচি দেওয়া হবে।

বৃহস্পতিবার জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে দ্বিতীয় দফা সংলাপের আগে বিভিন্ন রাজনৈতিক জোট ও দলের সঙ্গে সংলাপ হয় সরকারের।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত