রোববার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

সেই তোফা রংপুর মেডিকেলে

আপডেট : ০৬ জানুয়ারি ২০১৯, ১১:৪১ পিএম

কোমরে জোড়া লাগানো অবস্থায় জন্ম নেওয়া আলোচিত যমজ শিশুদের একজন তোফাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য গত শনিবার রাতে রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত তোফাকে শিশু বিভাগের ৯ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এর আগে ডায়রিয়া, শ্বাসকষ্ট ও কাশি শুরু হলে তোফাকে প্রথমে গত বুধবার রাতে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে শনিবার সকালে ভর্তি করা হয় গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালে। এদিন রাতেই তাকে পাঠানো হয় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।

কোমরে জোড়া লাগানো অবস্থায় ২০১৬ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর জন্ম নেয় তোফা ও তহুরা। ২০১৭ সালের ১ আগস্ট ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বিভিন্ন বিভাগের ২২ জন চিকিৎসকের একটি দল ৯ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে দুজনকে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে আলাদা করে। জোড়া লাগানো শিশুকে (পাইগোপেগাস) দেশে আলাদা করার ঘটনায় তোফা-তহুরাই প্রথম। একই সঙ্গে জোড়া লাগানো অবস্থায় জন্ম নেওয়া তোফার বোন তহুরা সুস্থ আছে।

তোফার মা শাহিদা বেগম ও চিকিৎসকরা জানান, গাইবান্ধা জেলা হাসপাতালের জুনিয়র কনসালট্যান্ট (শিশু) আবুল আজাদ ম-ল শনিবার রাতে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে ২৭ মাস বয়সি তোফাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শ দেন। সে অনুযায়ী রাতেই তাকে নেওয়া হয় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সেখানে রক্তসহ তোফার শরীরের বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা পরীক্ষার ফলাফল দেখার পর এই শিশুটিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর প্রয়োজন হবে কি না সে সিদ্ধান্ত দেবেন।   

চিকিৎসক আবুল আজাদ ম-ল গতকাল রবিবার বিকেলে দেশ রূপান্তরকে বলেন, একসঙ্গে ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হওয়ায় কিছুটা ঝুঁকিতে রয়েছে তোফা। তার বিষয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু সার্জারি বিভাগের প্রধান সাহনূর ইসলাম ও রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু বিভাগের প্রধান বিকাশ মজুমদার স্যারের সঙ্গে পরামর্শ করেছি। তোফা এখন বিকাশ মজুমদার স্যারের তত্ত্বাবধানে আছে, আশা করছি ভালো হয়ে যাবে।

তোফা-তহুরার মা শাহিদা বেগম জানান, সম্পূর্ণ চিকিৎসা শেষে গত বছরের ৪ ডিসেম্বর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের কাশদহে নানাবাড়িতে নিয়ে আসা হয় তোফা ও তহুরাকে। এরপর প্রায় এক মাস দুজনে ভালো ছিল।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত