বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

মাছের আক্রমণে নাকাল গ্রামবাসী

আপডেট : ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ০৯:৩৯ পিএম

মাছের আক্রমণ থেকে বাঁচতে প্রশাসনের সহায়তা চেয়েছে কানাডার আটলান্টিক উপকূলবর্তী একটি গ্রামের বাসিন্দারা। ৪০টি সামুদ্রিক সিল মাছেদের একটি দল গ্রামটির রাস্তা বন্ধ করে, বাড়ির দরজায় আঘাত করে এবং ব্যবসাকেন্দ্রে হানা দিয়ে উপদ্রব করছে। এমন অভিযোগ করেই গত বুধবার (৯ জানুয়ারি) গ্রামবাসী কানাডার ফেডারেল ফিশারিজ দপ্তরের সহায়তা চায়।

এক সপ্তাহ আগে রড্ডিকট বাইড আর্ম শহরের পার্শ্ববর্তী সাগরের পানি বরফ হয়ে যায়। ফলে গ্রামে আটকে যাওয়া সিল মাছেরা চাইলেও সাগরে ফিরতে পারছে না। খাবার এবং আশ্রয়ের সন্ধানে তাই মাছেরা সাধারণ মানুষের বাড়িতে হানা দেয়।

কানাডার আইন অনুসারে সামুদ্রিক কোনো প্রাণীর ক্ষতি করা আইনত দণ্ডনীয়। এমনকি কোনো শুয়ে থাকা সিল মাছকেও বিরক্ত করা যায় না আইনত। তাই চাইলেও গ্রামবাসীরা সিল মাছেদের বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নিতে পারছিল না। রাতের অন্ধকারে চলন্ত গাড়ির সঙ্গে আঘাত লাগা এবং তাতে আহত হওয়ার ঘটনাও ঘটছে।

শহরটির মেয়র শিলা ফিটজরাল্ড দ্য নর্দান পেন পত্রিকাকে জানান, ‘মাছগুলোকে অনেক বেশি ক্লান্ত দেখাচ্ছে। তারা দ্রুত ছুটতে পারছে না। মাছেদের এভাবে কষ্ট পেতে দেখা এখানকার মানুষদের জন্য সত্যিই হৃদয়বিদারক।’

কানাডার এই অঞ্চল সিল মাছেদের প্রজনন ক্ষেত্রের জন্য বিখ্যাত। সিল মাছেরা মূলত কানাডীয় আটলান্টিকের দক্ষিণ প্রান্ত থেকে গ্রিনল্যান্ডের সৈকত হয়ে নিউফাউন্ডল্যান্ডের দিকে আসে শীতের সময়ে। সামুদ্রিক জীববিজ্ঞানীদের মতে, পানি বরফ হয়ে যাওয়ায় সিল মাছেরা উন্মুক্ত পানির আধারের খোঁজে যত্রতত্র ঘুরে বেড়াচ্ছে। বেশি দিন পানিহীন থাকলে মাছেদের মধ্যে মৃত্যুর ঘটনা ঘটতে পারে। সূত্র: এএফপি

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত