শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

খবর প্রকাশের দেড় বছর পর সাংবাদিককে পেটালেন ছাত্রলীগ নেতা

আপডেট : ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৫:২০ পিএম

বরগুনার বামনায় সংবাদ প্রকাশের জের ধরে দৈনিক আমাদের সময় পত্রিকার বামনা প্রতিনিধি ও দৈনিক মানবজমিন পত্রিকার বরগুনা প্রতিনিধি মিজানুর রহমান টিপুকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছেন বরগুনা জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি হেমায়েত হোসেন মোল্লা।

হেমায়েত বরগুনার স্পিডবোট চালক মো. জব্বার খান হত্যা মামলার আসামি। এ ঘটনায় বামনা থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানান ওই সাংবাদিক।

রবিবার দুপুর ১টায় বামনা উপজেলা শহরের সদর রোডে এ হামলা হয় বলে জানান আহত সাংবাদিক মিজানুর রহমান টিপু। বর্তমানে তিনি বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

তিনি জানান, ২০১৪ সালের ৮ অক্টোবর সন্ধ্যায় বরগুনা ডিসি অফিসের স্পিডবোট চালক মো. জব্বার খানকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। পুলিশের তদন্তে এ হত্যার মামলায় হেমায়েত হোসেন মোল্লার নাম আসামি হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হয়। এরপর হেমায়েত পালিয়ে থাকে।

তিনি আরো জানান, ১০ জুন ২০১৭ সালে হেমায়েত হোসেন আওয়ামী লীগের স্থানীয় সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমনের সঙ্গে একটি ইফতার পার্টিতে যোগ দেয়। যা নিয়ে দৈনিক আমাদের সময় পত্রিকার প্রথম পাতায় ‘খুনের আসামিকে নিয়ে সাংসদের ইফতার’ শিরোনামে সংবাদ ছাপা হয়।

মিজানুর রহমান জানান, দীর্ঘদিন দিন পর এলাকায় ফিরে এসে ওই সংবাদ প্রকাশের জেরে রবিবার দুপুর ১টার দিকে ফোন করে ডেকে নিয়ে হেমায়েত মোল্লা নিজ ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠা তার ওপর হামলা চালায়। তাকে বাজারের সড়কে ফেলে রড দিয়ে এলোপাতাড়ি পেটান হয়।

এ বিষয়ে বরগুনা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুবায়ের আদনান অনিক ও অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা হেমায়েত হোসেন মোল্লার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে কেউ ফোন রিসিভ করেননি। 

এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে বামনা প্রেসক্লাবের সভাপতি ওবায়দুল কবির আকন্দ দুলাল জানান, এভাবে চলতে থাকলে সাংবাদিকরা কখনো সত্য সংবাদ প্রকাশ করতে পারবে না। এ ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে বামনা সাংবাদিকরা কঠোর কর্মসূচি দেবে।

এ বিষয়ে বামনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিএম শাহ-নেওয়াজ বলেন, বিষয়টি আমরা শুনেছি। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত