শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

একদিকে সংলাপ, অন্যদিকে ভয়াবহ সব হামলায় তালেবান

আপডেট : ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৯:৫০ এএম

আফগানিস্তানে চলা ১৭ বছরের যুদ্ধ অবসানে আলোচনার টেবিলে ফিরেছে তালেবান। তবে কথিত এই শান্তি আলোচনায় তারা নিয়েছে অন্যরকম এক কৌশল।

একদিকে যুক্তরাষ্ট্র ও আফগান বিরোধী দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে তালেবান প্রতিনিধিরা। অন্যদিকে সরকারি বাহিনীর সদস্যদের ওপর একের পর এক ভয়াবহ সব হামলা চালাচ্ছে তাদের যোদ্ধারা।

রাশিয়ার মস্কোয় আফগান বিরোধী দলগুলোর সঙ্গে তালেবানের সংলাপ শুরু হওয়া সত্ত্বেও তাদের যোদ্ধাদের পৃথক হামলায় কমপক্ষে ৪৭ জন নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে আলজাজিরা।

মঙ্গলবার উত্তরাঞ্চলীয় কুন্দুজ প্রদেশে ভোরে চালানো হামলায় সরকারি বাহিনীর কমপক্ষে ২৬ সদস্য নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে ২৩ সেনা এবং স্থানীয় পুলিশের তিন সদস্য রয়েছেন বলে জানিয়েছেন প্রাদেশিক পরিষদের প্রধান ইউসুফ আইয়ুবী। আহত হয়েছেন আরও ১২ সেনা।

আইয়ুবী বলেন, “দিন দিন কুন্দুজ শহর এবং এর আশপাশের নিরাপত্তা পরিস্থিতি খারাপ হচ্ছে।”

গত ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বর এবং ২০১৬ সালের অক্টোবরে কিছু সময়ের জন্য শহরটি দখলে নেয় তালেবান যোদ্ধারা। আবারও এমনটি ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন প্রাদেশিক পরিষদের প্রধান।

মঙ্গলবার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বাঘলান প্রদেশে একটি চেকপোস্টে তালেবান যোদ্ধাদের হামলায় কমপক্ষে ১১ পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার রাতে বাঘলানি মারকাজি জেলায় চালানো এই হামলা দুই ঘণ্টা ধরে অব্যাহত ছিল।

এছাড়া সোমবার সকালের দিকে উত্তরাঞ্চলীয় সামানগান প্রদেশে সরকার সমর্থক একটি মিলিশিয়া বাহিনীর ওপর হামলা চালিয়ে এক নারীসহ ১০ জনকে হত্যা করে তালেবান যোদ্ধারা। দ্বার-ই সুফ জেলায় এ হামলার ঘটনায় আরও চারজন আহত হয়েছেন।

এমন সময় এসব হামলার ঘটনা ঘটছে, যখন মস্কোয় সাবেক আফগান প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাইসহ দেশটির প্রভাবশালী ব্যক্তিদের সঙ্গে আলোচনায় বসেছে তালেবান প্রতিনিধি দল। তবে এই সংলাপে আফগান সরকারের কোনো প্রতিনিধি নেই। অবশ্য এজন্য ক্ষোভও প্রকাশ করেছেন প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত