সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

জ্যাকসন পরিবারের আপত্তি সত্ত্বেও টিভিতে বিতর্কিত সিনেমা

আপডেট : ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৪:১৭ পিএম

মাইকেল জ্যাকসনকে নিয়ে নির্মিত বিতর্কিত প্রামাণ্যচিত্র ‘লিভিং নেভারল্যান্ড’ প্রচারে কোনো আপত্তি আমলে নিচ্ছে না টেলিভিশন চ্যানেল এইচবিও। মূলত ছবির বিষয়বস্তু নিয়েই প্রয়াত পপ তারকার পরিবারের অস্বস্তি।

ভ্যারাইটি ডটকমকে এইচবিও’র প্রোগ্রামিং প্রেসিডেন্ট ক্যাসি ব্লয়স বলেন, ‘আমরা প্রচারে তারিখ ঘোষণা করেছি। সেই মতেই প্রচার হবে।’

শুক্রবার জ্যাকসন এস্টেটের পক্ষ থেকে চ্যানেলটির প্রধান নির্বাহী রিচার্ড প্লেপলারকে এক চিঠিতে বলা হয়, ‘লিভিং নেভারল্যান্ড’ একতরফা ও উত্তেজনা ছড়ানোর মতো অনুষ্ঠান। এইচবিও’র ইতিহাসে সবচেয়ে লজ্জাকর পর্ব হতে যাচ্ছে এটি। তাই যেন ছবিটি প্রচার না করা হয়।

ড্যান রিড পরিচালিত চার ঘণ্টা দৈর্ঘ্যের সিনেমাটি নির্মিত হয়েছে ওয়াড রবসন ও জেমস সেফচাকের বয়ানের ভিত্তিতে। তারা জানান, শৈশবে মাইকেল জ্যাকসন তাদের যৌন নিগ্রহ করে।

জানুয়ারিতে সিনেমাটির প্রিমিয়ার হয় সানড্যান্স ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে। সে সময় ‘লিভিং নেভারল্যান্ড’ কয়েক দশক আগের বিতর্কে ঘি ঢালে। যদিও বিষয়টি আদালতে মীমাংসিত, কিন্তু ওই দুই ব্যক্তি আবারও মাইকেলের বিরুদ্ধে পুরোনো অভিযোগে ফিরে গেলেন।

গায়কের উত্তরাধিকারীদের চাপ সত্ত্বেও এইচবিও দুই পর্বে ৩ ও ৪ মার্চ ‘লিভিং নেভারল্যান্ড’ প্রচারের সিদ্ধান্তে অটল রয়েছে।

চ্যানেলটির প্রোগ্রামিং প্রেসিডেন্টের মতে, দুই ব্যক্তি তাদের গল্প ভাগাভাগি করেছেন ছবিতে। যা খুবই শক্তিশালী বার্তা দেয়। দর্শক ছবিটি দেখে তারপর বিচার করুক।

আরও জানান, এইচবিও প্রামাণ্যচিত্রের ক্ষেত্রে যে ধরনের মান বজায় রাখে, ‘লিভিং নেভারল্যান্ড’ সেভাবেই নির্মিত।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত