সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

উত্তম কুমারকে নাচতে বাধ্য করেন ক্যাবারে ড্যান্সার

আপডেট : ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:৫৩ পিএম

ক্যাবারে ড্যান্সার পেশার কারণে আরতি দাস হয়ে উঠেছিলেন মিস শেফালি। পরবর্তীতে ভারতীয় বাংলা চলচিত্র জগতের ‘হেলেন’ বলা হতো তাকে।

সম্প্রতি মিস শেফালি জানান, তার নাচ দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন মহানায়ক উত্তম কুমার।

এক অনুষ্ঠানে বিশেষ ধরনের ড্যান্স ফর্মের জন্য এক ব্যক্তিকে মালা পরানোর সুযোগ আসে মিস শেফালির কাছে। আর সেই ব্যক্তিটিই ছিলেন উত্তম কুমার।

হুলা ড্যান্সে উত্তম কুমারকে হাত ধরে টেনে নিয়ে গিয়ে নাচিয়ে ছেড়েছিলেন। আর মনে মনে বলেছিলেন, ‘তুমি উত্তম কুমার, আমিও মিস শেফালি, তোমাকে আজ ছাড়ছি না।’ পরবর্তীকালে তাদের মধ্যে ভালো বন্ধুত্ব হয়ে যায়।

অ্যাংলো-ইন্ডিয়ান বাড়িতে পরিচারিকার কাজ করতে করতে লুকিয়ে লুকিয়ে দেখে নাচ শিখেছিলেন মিস শেফালি। এরপর ক্যাবারে ড্যান্সার পেশা বেছে নেন। বিভিন্ন হোটেলে ক্যাবারে ড্যান্সার হিসাবে কাজ করেছেন। হয়ে ওঠেন সেসময়ের কলকাতার অন্যতম সেরা ক্যাবারে ড্যান্সার।

এক খ্যাতনামা হোটেলে ৭০০ টাকা বেতন পাবেন শুনে ভীষণ খুশি হয়েছিলেন মিস শেফালি। কিন্তু যে পোশাক পরতে হবে তা দেখে কেঁদে ফেলেছিলেন। পরে পরিবারের কথা ভেবে কাজ করতে রাজি হয়েছিলেন তিনি।

গ্র্যান্ড, পার্কসহ বিভিন্ন দামি হোটেলে ক্যাবারে ড্যান্সার হিসাবে খ্যাতি অর্জন করেন তিনি।

পরবর্তীকালে ক্যাবারে ড্যান্সার থেকে থিয়েটারে আসেন মিস শেফালি। পরিচালক সত্যজিৎ রায় নিজে ফোন করেছিলেন তাকে। সিনেমায় অভিনয় করার প্রস্তাব দেন। ‘প্রতিদ্বন্দ্বী’ ছবিতে কাজ করার সুযোগও আসে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত