সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

‘বিশ্ববিদ্যালয় সার্টিফিকেট বিক্রির দোকান নয়’

আপডেট : ০৩ মার্চ ২০১৯, ০২:৩৮ পিএম

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান বলেছেন, ‘দেশে বর্তমানে শতাধিক বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। কিন্তু বেশির ভাগ বিশ্ববিদ্যালয় মানসম্মত শিক্ষা দিতে ব্যর্থ হচ্ছে। এসব বিশ্ববিদ্যালয়ে পর্যাপ্ত সুযোগ-সুবিধার অভাব রয়েছে। কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে সার্টিফিকেট বিক্রির অভিযোগও রয়েছে। মনে রাখতে হবে, কোনো বিশ্ববিদ্যালয় সার্টিফিকেট বিক্রির দোকান নয়।’

রোববার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত সিটি ইউনিভার্সিটির ৩য় সমাবর্তন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

সমাবর্তন বক্তা বলেন, ‘অনেকগুলো বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে যাদের কাঠামোগত সমস্যা রয়েছে।  শিক্ষার মান ঠিক রাখতে যেসব বিষয়ের ওপর গুরুত্ব দেওয়া উচিত সেগুলোর প্রতি গুরুত্ব না দিয়ে বরং অবহেলা করে। অনেকের ভালো গ্রন্থাগারসহ যোগ্য শিক্ষকের অভাব রয়েছে। ফলে শিক্ষার মান কাঙ্ক্ষিত স্তরে পৌঁছানো সম্ভব হচ্ছে না। এ জন্য আরও আন্তরিক চেষ্টা প্রয়োজন।’

ইউজিসি চেয়ারম্যান বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়কে হতে হবে জ্ঞান সৃষ্টি ও জ্ঞান ধারণের একটি মূল্যবান প্রতিষ্ঠান। নিজেদের স্বার্থেই এসব বিশ্ববিদ্যালয়কে তাদের সকল সমস্যার সমাধান করে আদর্শ বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হতে হবে।’

নতুন গ্র্যাজুয়েটদের শুভেচ্ছা জানিয়ে অধ্যাপক আবদুল মান্নান বলেন, ‘একজন আলোকিত মানুষ অসাম্প্রদায়িক সত্যানুসন্ধানী, সহনশীল, মানবিক, মূল্যবোধসম্পন্ন হয়। তার জন্য তাকে জানতে হয় নিজের মাতৃভাষা, ইতিহাস ও ঐতিহ্য, বিশ্বসভ্যতা, দর্শন, মানবজাতির ইতিহাসসহ আরও বিভিন্ন বিষয়। আমি আশা করি তোমাদের বিশ্ববিদ্যালয় এসব জিনিস তোমাদের শিখিয়েছে।’

তিনি বলেন, শিক্ষা ও জ্ঞান একটি চলমান প্রক্রিয়া। এটি মনে করার কোনো কারণ নেই যে, আজকের এই সমাবর্তনের মধ্য দিয়ে গ্র্যাজুয়েটদের শিক্ষা জীবনের সমাপ্তি ঘটছে। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা জীবন শেষ হতে পারে কিন্তু বাস্তব জীবনে আসল শিক্ষা শুরু এখন থেকেই।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, বর্তমান সরকার শিক্ষাকে অধিক গুরুত্ব দিচ্ছে। বর্তমানে ৪৩টি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ও ১০৩টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়কে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। বিশ্বের শ্রমবাজারে উপযোগী করে দক্ষ কর্মী গড়তে সিটি ইউনিভার্সিটি যথাযথ দায়িত্ব পালন করছে। সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সম্পূরক হয়ে একে অপরের সঙ্গে কাজ করতে হবে।

তিনি বলেন, তোমরা আজ যারা ডিগ্রি নিয়ে বের হচ্ছে, তারা এখন থেকে অর্জিত জ্ঞান ও মেধা দেশ ও জাতির কল্যাণে কাজ লাগাবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ করে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে তোলার আহ্বান জানান তিনি।

সিটি ইউনিভার্সিটির সমাবর্তন অনুষ্ঠানে কালো, লাল ও হলুদ গাউন আর মাথায় ক্যাপ পরে সমবেত হয়। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩য় তম সমাবর্তনে মোট ৩ হাজার ৫২৫ জনকে ডিগ্রি প্রদান কারা হয়।  তার মধ্যে স্নাতক পর্যায়ে ৩ হাজার ৬১ জন ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে ৪৭১ জন রয়েছেন।

সম্মিলিত মেধা তালিকায় সেরা তিনজনকে চ্যান্সেলর স্বর্ণ পদক তুলে দেওয়া হয়। স্বর্ণ পদকপ্রাপ্তরা হচ্ছেন ইংরেজি বিভাগের ছাত্রী শিরীন শিলা, বিবিএ বিভাগের আমবারিন খান ও টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ছাত্রী মোরশেদা খাতুন।

সিটি ইউনিভার্সিটির সমাবর্তন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন উপাচার্য অধ্যাপক শাহ ই আলম, ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান আলহাজ মকবুল হোসেন।

এছাড়াও ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য, সিন্ডিকেট সদস্য, একাডেমি কাউন্সিলর, বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত