শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

নির্বাচনে ‘রুশ সংযোগ’

প্রতিবেদন আটকাতে মরিয়া ট্রাম্প

আপডেট : ০৩ মার্চ ২০১৯, ১১:১৩ পিএম

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত শনিবার বিশেষ কৌঁসুলি রবার্ট মুয়েলারের বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। ওয়াশিংটন ডিসি যখন আসন্ন সপ্তাহে মুয়েলারের তদন্ত রিপোর্টের অপেক্ষায় আছে তখনই ট্রাম্প মুয়েলারসহ সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল জেফ সেসনস এবং সাবেক এফবিআই প্রধান জেমন কমিকে আক্রমণ করে বসলেন বলে জানিয়েছে সিএনএন।

শনিবার কনজারভেটিভ পলিটিক্যাল অ্যাকশন সেমিনারে প্রায় দুই ঘণ্টাব্যাপী বক্তব্য রাখেন ট্রাম্প। এ সময় তিনি বেশ কয়েকটি ইস্যুতে ব্যক্তিগত ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং কিছু বিষয়ে নিজের প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেন। এ সময় দেশের কলেজ ক্যাম্পাসে বাক স্বাধীনতা রক্ষায় নির্বাহী আদেশ জারির প্রতিশ্রুতি দেন। এই একই দাবি তার প্রতিদ্বন্দ্বী এলিজাবেথ ওয়ারেন অনেকদিন ধরেই করে আসছিলেন।

কিন্তু তিনি মুয়েলারের প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমরা এখন রিপোর্টের জন্য অপেক্ষা করছি এবং আমরা খুঁজে বের করব এর পেছনে কারা আছে। কিছু পদে ভুল মানুষ নিয়োগ দেওয়া হয়েছে এবং তারা জনগণের কথা বলেন না। আর এখন হঠাৎ করেই তারা আপনাকে বাজে তথ্য দিয়ে বের করে দেওয়ার চেষ্টা করছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘রবার্ট মুয়েলার ১৩ জন রাগী ডেমোক্র্যাটকে কমিশনে বসিয়েছেন। এদের মধ্যে একজন হিলারি ক্লিনটন ফাউন্ডেশনের সঙ্গে যুক্ত। আরেকজন আছেন যাকে সম্ভবত মানুষই বলা যাবে না। এরা সবাই খুনি। মূলত, তাদের হাত ধরেই মুয়েলার যা ইচ্ছে তাই করতে চাইছেন এবং সম্ভবত তিনি তাই করবেন।’

তবে সিএনএন-এর প্রতিবেদনে বলা হয় রবার্ট মুয়েলারের দলের কেউই ক্লিনটন ফাউন্ডেশনের সঙ্গে যুক্ত নন। ট্রাম্প খুব সম্ভবত মুয়েলারের দলের আইনজীবী জেনি রিহে’কে আলোচনায় এনেছেন, যিনি আগে ক্লিনটন ফাউন্ডেশনের হয়ে কাজ করতেন। বিচার বিভাগে কাজ করে এমন অনেক আইনজীবীই অতীতে ডেমোক্র্যাটদের নির্বাচনের সময় অর্থ সহায়তা দিয়েছিলেন।

মুয়েলার তার তদন্তে আপস করেছেন, এমন অভিযোগও করেন ট্রাম্প। মুয়েলার এবং সাবেক এফবিআই প্রধান জেমস কমি ঘনিষ্ঠ বন্ধু বলেও দাবি করেন তিনি। যদিও কমি অতীতে বলেছিলেন, মুয়েলার তার ভালো বন্ধুদের মধ্যে একজন নন। ট্রাম্প তার বক্তব্যে সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেলকে ‘অপদার্থ’ আখ্য দিয়ে বলেন, সেসনস প্রেসিডেন্টের ক্ষমতা ব্যবহার করে আর্টিকেল ২-এর অধীনে অনেককে নিয়োগ দিয়েছেন। বিশেষ কৌঁসুলি রবার্ট মুয়েলারের তদন্তকে অনেকবার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ‘উইচ হান্ট’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। তিনি বারবার বলেন, রবার্ট মুয়েলার কখনো ভোটে জেতেননি। ভোটে জেতেননি ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল রড রোসেনস্টেইন, যিনি মুয়েলারকে তার পদে নিয়োগ দিয়েছেন। ওদিকে প্রেসিডেন্টের এত ঘন ঘন আক্রমণের মুখে মার্চেই পদত্যাগ করার পরিকল্পনা করছেন রোসেনস্টেইন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত