সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

স্পর্শহীন ডিভাইস কাজ করবে যেভাবে

আপডেট : ০৮ মার্চ ২০১৯, ১২:৪৪ এএম

২০০৭ সালে আইফোনের মাধ্যমে মানুষ স্মার্টফোন জগতে ঢোকে। এরপর টাচ স্ক্রিনের একটি বিপ্লব ঘটে যায়। ক্রমাগতভাবে সবকিছু টাচস্ক্রিন হতে থাকে। এক দশকেরও বেশি সময় চলছে একই প্রযুক্তিতে।

তাই এখন নতুন কিছুর খোঁজে নেমে পড়েছেন প্রযুক্তি গবেষকরা। তারা স্পর্শবিহীন স্মার্টফোনের জন্য কাজ করছেন বলে জানা গেছে। গুগলের প্রজেক্ট সলি সম্পর্কে অনেকেরই অজানা থাকতে পারে। রাডার প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে ডিভাইসের সঙ্গে মানুষের সম্পর্ককে পুরোপুরি স্পর্শহীন করতে কাজ করছে তারা।

লেখাসহ সব ধরনের কাজকে স্পর্শহীন করতেই এই প্রযুক্তি। গুগলের এই প্রকল্প সফল হলে কেবল আঙুলের সঙ্গে আঙুলের ঘষাতেই আপনি স্ক্রল করতে পারবেন, লিখতে পারবেন। এই প্রযুক্তিতে পুরো একটি রাডারকে ছোট আকারে ডিভাইসের মধ্যে জুড়ে দেওয়া হয়। রাডার থেকে সিগন্যাল বের হয়ে আঙুলের গতিকে পর্যবেক্ষণ করে এবং সে অনুযায়ী কাজ করে।

এই প্রযুক্তিকেই আরেক ধাপ এগিয়ে নিচ্ছে সেন্ট অ্যান্ড্রুস কম্পিউটার হিউম্যান ইন্টারেকশন রিসার্চ গ্রুপ। তারা ইশারা প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছে। এই ধরুন আপনি যে বর্ণ লিখতে চাইবেন সেটি ইশারা করবেন আর লিখা হয়ে যাবে।

অনেক দিন ধরে অ্যাপল গ্লাস, গুগল গ্লাস সম্পর্কে নানা জল্পনা-কল্পনা শোনা যাচ্ছে। তবে ইনপুট ম্যাথডের জন্য কাজ খুব একটা এগোতে পারছে না। ধরুন এই ধরনের গ্লাস চোখে লাগিয়ে জগিং করার সময় আপনার একটি কল এলো। আপনি কীভাবে না থেমে ও জগিং থেকে মনোযোগ না সরিয়ে কলটি রিসিভ করতে পারবেন।

আরেকটি প্রযুক্তি নিয়ে কাজ চলছে সেটি হচ্ছে আল্ট্রাসাউন্ড প্রযুক্তি। এই প্রযুক্তিতে এক ধরনের শ্রবণোত্তর তরঙ্গ ব্যবহার করা হয়, যা বাতাসে এক ধরনের টাচের অনুভূতি দেয়।

ইলিপ্টিক ল্যাবস একটি প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছে, যেটি আপনার হেডফোনকে আল্ট্রাসাউন্ড রিসিভারে পরিণত করতে পারে। হেডফোনের পাশে হাতের ইশারা করলে তোলা যাবে সেলফি বা পরিবর্তন করা যাবে গান। তাই সামনের দিনগুলোতে এসবের যে কোনো একটি বাজারে চলে এলে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। সূত্র : টেকশহর

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত