সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

বলশেভিক বিপ্লবের পর রাশিয়ায় প্রথম রাজকীয় বিয়ে

আপডেট : ০২ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৩৬ পিএম

রাশিয়ার প্রাক্তন সাম্রাজ্যিক পরিবারের একজন বংশধর শুক্রবার তার ইতালীয় প্রেমিকাকে বিয়ে করেছেন। এক শতাব্দীরও বেশি সময় আগে বলশেভিক বিপ্লবের মধ্য দিয়ে রাজতন্ত্রের উৎখাতের পর রাশিয়ার মাটিতে অনুষ্ঠিত প্রথম রাজকীয় বিয়ে এটি।

গ্র্যান্ড ডিউক জর্জ মিখাইলোভিচ রোমানভ রাশিয়ার প্রাক্তন সাম্রাজ্যের রাজধানী সেন্ট পিটার্সবার্গের সেন্ট আইজাক ক্যাথেড্রালে ভিক্টোরিয়া রোমানোভনা বেততারিনির সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।

রাশিয়ার অর্থোডক্স পাদ্রিরা এই বিয়ে অনুষ্ঠানের পরিচালনা করেন। বরের মা, রাশিয়ার গ্র্যান্ড ডাচেস মারিয়া ভ্লাদিমিরোভনা, যিনি রাশিয়ার রাজকীয় সিংহাসনের স্বঘোষিত উত্তরাধিকারী এবং এক ডজনেরও বেশি ছোটখাটো ইউরোপীয় বিভিন্ন রাজপরিবারের সদস্য সহ শত শত অতিথি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

জর্জ মিখাইলোভিচের প্রপিতামহ গ্র্যান্ড ডিউক কিরিল ভ্লাদিমিরোভিচ ১৯১৭ সালের বলশেভিক বিপ্লবের সময় রাশিয়া থেকে পালিয়ে গিয়েছিলেন। তিনি প্রথমে ফিনল্যান্ডে পালিয়ে গিয়েছিলেন এবং পরে তার পরিবারের সঙ্গে পশ্চিম ইউরোপে স্থানান্তরিত হয়েছিলেন।

রাশিয়ার শেষ জার দ্বিতীয় নিকোলাসকে তার স্ত্রী এবং পাঁচ সন্তান সহ ১৯১৮ সালের জুলাই মাসে হত্যা করে বিপ্লবীরা। মস্কো থেকে ১৪৫০ কিলোমিটার পূর্বে ইয়েকাটারিনবার্গ শহরের এক বণিকের ঘরের ভাঁড়ারে তাদের হত্যা করা হয়।

জর্জ মিখাইলোভিচ (৪০) স্পেনের মাদ্রিদে জন্মগ্রহণ করেছিলেন এবং তার জীবনের বেশিরভাগ সময় স্পেন ও ফ্রান্সে কাটিয়েছেন।

তার স্ত্রী ৩৯ বছর বয়সী ভিক্টোরিয়া বেত্তারিনির বাবা রবার্তো বেত্তারিনি একজন ইতালীয় কূটনৈতিক। ভিক্টোরিয়া গত বছর রাশিয়ান অর্থোডক্স বিশ্বাসে ধর্মান্তরিত হন এবং ভিক্টোরিয়া রোমানোভনা নাম নেন।

জর্জ মিখাইলোভিচ ১৯৯২ সালে প্রথমবার রাশিয়া সফর করেন এবং ২০১৯ সালে মস্কোতে বসবাস শুরু করেন। সেখানে তিনি বেশ কয়েকটি দাতব্য প্রকল্পে কাজ করেন।

১৯১৭ সালের প্রথম দিকে নিকোলাস দ্বিতীয় সিংহাসন হারানোর আগে রোমানভ রাজবংশ রাশিয়ায় ৩০০ বছরেরও বেশি সময় ধরে শাসন করে আসছিল। সে বছর নভেম্বরে বলশেভিক বিপ্লবের পর রাশিয়ায় ৭০ বছর ধরে কমিউনিস্ট শাসন ছিল।

২০০০ সালে রাশিয়ার অর্থোডক্স গির্জা দ্বিতীয় নিকোলাসকে মাহাত্ম্য দান করে একজন সাধু হিসেবে ঘোষণা করে, যাকে সোভিয়েত কর্তৃপক্ষ দুর্বল নেতা হিসেবে চিত্রিত করেছিল।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত