মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

সংসদে জিএম কাদের

কোথাও কোথাও নির্বাচনের ফলাফল পূর্বনির্ধারিত ছিল

আপডেট : ০৫ মার্চ ২০২৪, ১১:৪৮ পিএম

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন তিন ধরনের হয়েছে বলে দাবি করেছেন বিরোধী দলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের। তিনি অভিযোগ করে বলেছেন, ‘কোথাও কোথাও ইলেকশন যেভাবেই হোক, ফলাফল একটা পূর্বনির্ধারিত ছিল এবং শিট বানিয়ে দেওয়া হয়েছে।’ 

জিএম কাদেরের এমন বক্তব্যের পর সংসদে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। সরকারি দল ও অধিকাংশ স্বতন্ত্র এমপিদের প্রতিবাদ করতে দেখা যায়। এরপর জিএম কাদেরের বক্তব্য চলাকালে সরকারি দলের সংসদ সদস্যরা প্রতিবাদ চালিয়ে যান। মঙ্গলবার (৫ মার্চ) রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনা এবং দ্বাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশনের সমাপনী ভাষণে জিএম কাদেও এসব কথা বলেছেন।

জিএম কাদেও আরও বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয়েছে, তিন ধরনের ইলেকশন হয়েছে। কোনো কোনো এলাকায় সবগুলো সুষ্ঠু ইলেকশন হয়েছে। সেখানে কোনো ডিস্টার্বেন্স হয়নি। সাধারণত প্রতিযোগিতাহীন ইলেকশন হয়েছে সেখানে কোনো শক্ত প্রার্থী ছিল না, সেখানে সরকারের সদিচ্ছা ছিল, শতভাগ সুষ্ঠু হয়েছে, তবে উপস্থিতি কম ছিল। আরেকটা হয়েছে ফ্রি স্টাইলে। সেখানে মাসল পাওয়ার এবং মানি অবাধে ব্যবহার করা হয়েছে। সেটার মাধ্যমে ভোটকেন্দ্র দখন করা হয়েছে। বেশির ভাগ সময় এখানে সরকারি দলের বিদ্রোহী প্রার্থী, স্বতন্ত্র প্রার্থী বা আমাদের প্রার্থী ছিল।

সরকারি দলের ও অধিকাংশ স্বতন্ত্র এমপিরা এই বক্তব্যের প্রতিবাদ জানাতে থাকলে জিএম কাদের হেসে বলেন, এটা নাও হতে পারে। 
নির্বাচনে ৪২ শতাংশ ভোট পড়া সম্পর্কে জিএম কাদের বলেন, যে প্রেক্ষাপটে ছিল তাতে ৪২ শতাংশ ভোট দিতে গেলে সব ভোটকেন্দ্রের সামনে ৮ ঘণ্টা লাইন থাকার কথা। কিন্তু তা ছিল না। এ সময় সংসদ সদস্যরা হইচই শুরু করেন। 

জিএম কাদের বলেন, ‘অনেকে বলেছেন ঘণ্টায় ৩-৪টার বেশি ভোট হয়নি। আমি আমার কথা বলছি না। ধারণার কথা বলছি।’ সংসদ সদস্যরা হইচই করেন। বিরোধী দলীয় চিফ হুইপকে বলতে শোনা যায়, ‘শোনেন না। ধৈর্য ধরেন।’ জিএম কাদের বলেন, ‘যদি ৪২ দেখানো হয় বাকি ব্যালটগুলো কীভাবে কার পক্ষে এল?’ 

জিএম কাদের বলেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সংবিধান মোতাবেক ও প্রচলিত আইন অনুযায়ী বৈধ হিসেবে গণ্য করা যায়। আইন অনুযায়ী তা বৈধ হয়েছে। কেউ বেআইনি ঘোষণা করেনি। কিন্তু সিংহভাগ মানুষ মনে করে ভালো নির্বাচন হয়নি, সঠিকভাবে জনমতের প্রতিফলন হয়েছে বলে মনে করে না। 

 

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত