রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ইফতারে না যাওয়ায় শিক্ষক লাঞ্ছিত

আপডেট : ০২ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৪৬ পিএম

ইফতারে না যাওয়ার কথা বলায় জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলার ঝাউগড়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শহিদুর রহমানকে (৬০) লাঞ্ছিত করার অভিযোগ উঠেছে।

আজ মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) সকালে উপজেলার ঝাউগড়া ইউনিয়নের পূর্ব ঝাউগড়া এলাকায় ইফতারের দাওয়াত দেওয়াকে কেন্দ্র এ ঘটনা ঘটে। আহত শিক্ষক মো. শহিদুর রহমান এলাকার এলাকার মৃত খলিলুর রহমান ছেলে।

স্থানীয় ও ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, গতকাল সন্ধ্যায় প্রধান শিক্ষক শহিদুর রহমানের ভাতিজা হাফিজুর রহমান রিপন তাকে ইফতারের দাওয়াত দিতে যান। এ সময় রিপনের বাবা হাতেম আলীও ছিলেন। প্রধান শিক্ষক ও রিপনের পরিবার যৌথভাবে ইফতার মাহফিল আয়োজন করার কথা ছিল। এ নিয়ে সেদিন রাতে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে মঙ্গলবার সকালে ওই শিক্ষকের সঙ্গে ভাতিজা রিপনের বাবা হাতেম আলীর হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ সময় হাতেম আলীর ছেলে হাফিজুর রহমান রিপন, সোলাইমান হোসেন বাবু ও তার ছেলে সজীব ওই শিক্ষকে মারধর করেন।

আহত প্রাধান শিক্ষক শহিদুর রহমান বলেন, গতকাল সন্ধ্যায় ইফতারের পর দোকান ঘরের সামনে আমি বসেছিলাম। এ সময় হাতেম আলী ও তার ছেলে রিপন আমাকে ইফতারের দাওয়াত দিতে আসেন এবং মোটা অঙ্কের চাঁদা দাবি করেন। চাঁদা দিয়ে দাওয়াতে যেতে আমি অনীহা প্রকাশ করলে আমার তিনি ওপর ক্ষিপ্ত হন। পরে আজ সকালে স্কুলে যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হওয়ার সময় তারা আমার ওপর হামলা করেন।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে মো.সজিব বলেন, গতকাল রাতে প্রধান শিক্ষক শহিদুর রহমানকে ইফতারের দাওয়াত দিতে যাই। কিন্তু তিনি দাওয়াত গ্রহণ না করে আমাদের ওপর চড়াও হন। এক পর্যায়ে তিনি আমাদের লাঞ্ছিত করেন। পরে আমরা চলে আসি। তাকে লাঞ্ছিত করার মতো কোনো ঘটনা ঘটে নাই।’

মেলান্দহ থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) মাসুদুর রহমান বলেন, ‘খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত