সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

প্রথম সিনেমায় কত পারিশ্রমিক পেয়েছিলেন শর্মিলা ঠাকুর?

আপডেট : ০৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:৫৫ পিএম

সত্যজিৎ রায় পরিচালিত ‘অপুর সংসার’ ছিল শর্মিলা ঠাকুরের ক্যারিয়ারের প্রথম সিনেমা। জীবনের প্রথম অভিনয় বাবদ কত পারিশ্রমিক পেয়েছিলেন শর্মিলা, প্রথম জীবনের উপার্জন এবং তৎকালীন সমাজে দ্রব্যমূল্য প্রসঙ্গে একাধিক তথ্য শেয়ার করেছেন নায়িকা। 

শর্মিলা জানিয়েছেন, অভিনয়ের জন্য সত্যজিৎ তাকে ৫ হাজার টাকা পারিশ্রমিক দেন। শুধু তা-ই নয়, সেই পারিশ্রমিক কীভাবে খরচ করেছিলেন শর্মিলা, সে প্রসঙ্গেও আলোকপাত করেছেন অভিনেত্রী।

শর্মিলা বলেন, ‘অল্প বয়সে আমি রোজগার করতে শুরু করি। তখন এখনকার মতো পারিশ্রমিক পাইনি ঠিকই, তবে এ কথাও মানতে হবে যে, সে সময় দ্রব্যমূল্যও আজকের মতো ছিল না।’ 

তবে শুধুই টাকা নয়, শর্মিলা জানান, টাকা ছাড়াও সত্যজিৎ অভিনেত্রীকে একটি শাড়ি এবং ঘড়ি উপহার দেন। শর্মিলা বলেন, ‘বাকি বাঙালি পরিবারের মতোই সঙ্গে সঙ্গে আমি সোনার দোকানে হাজির হয়েছিলাম। তার পর ওই টাকায় হাতের বালা, নেকলেস আর কানের দুল কিনেছিলাম। ওই টাকাটা কম হলেও সে সময় জিনিসপত্রের দামও খুবই কম ছিল।’

শর্মিলা আরও জানান, ক্যারিয়ারের শুরুতে হিন্দি সিনেমাতে অভিনয় করে তিনি ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা পারিশ্রমিক পেতেন। কিন্তু, তার প্রথম হিন্দি সিনেমার জন্য শর্মিলা ২৫ হাজার টাকা পারিশ্রমিক পেয়েছিলেন।

উল্লেখ্য, শর্মিলার প্রথম হিন্দি সিনেমা ছিল শক্তি সামন্ত পরিচালিত ‘কাশ্মীর কি কলি’। শর্মিলা জানান, পরিচালক তাকে পারিশ্রমিকের বদলে মুম্বাইয়ের বর্তমান ভিলে পার্লে অঞ্চলে জমি দিতে চেয়েছিলেন। শর্মিলার কথায়, ‘আমি বলেছিলাম, আপনি কি পাগল! আমি এই জলা জমিতে থাকব!’

হিন্দি সিনেমাতে পা রাখার পর মুম্বাইয়ে শর্মিলার কোনও বাড়ি ছিল না। অভিনেত্রী জানান, শুরুর কয়েক বছর তিনি থাকতেন তাজমহল হোটেলে। শর্মিলা বলেন, ‘কয়েক বছর পর আমি ৩ লক্ষ টাকা দিয়ে বাড়ি কিনি। কিন্তু সেই টাকা জোগাড় করতে আমাকে রীতিমতো হিমশিম খেতে হয়েছিল। কারণ, তখন আমাদের বিপুল হারে কর দিতে হত বলে টাকা জমানো খুব কঠিন ছিল।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত