মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

‘জনগণের সম্মিলিত শক্তির কাছে আ. লীগকে পরাজিত হতেই হবে’

আপডেট : ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৩৮ পিএম

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, মিথ্যা মামলায় বিএনপি নেতাকর্মীদের সাজা ও জামিন না দিয়ে কারাগারে পাঠানোকে কতৃর্ত্ববাদী আওয়ামী সরকার এখন তাদের প্রাত্যহিক কর্মসূচিতে পরিণত করেছে। তবে জনগণের সম্মিলিত শক্তির কাছে আওয়ামী শাসকগোষ্ঠীকে পরাজয় বরণ করতেই হবে। আওয়ামী ভয়াবহ দুঃশাসনের মূলোৎপাটন ঘটাতে জনগণ দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।

আজ বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন।

সাজাপ্রাপ্ত বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রশীদ হাবিবসহ ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সদস্য লতিফুল্লাহ জাফরু, বংশাল থানাধীন ৩৩ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সহসভাপতি মো. মাকসুদ হোসেন এবং সদস্য মোহাম্মদ আরিফ হাসান আদালতে হাজির হয়ে বৃহস্পতিবার জামিন আবেদন করলে আদালত কতৃর্ক তাদের জামিন নামঞ্জুর এবং কারাগারে প্রেরণের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে এ বিবৃতি দেন বিএনপি মহাসচিব।

বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ৭ জানুয়ারির ডামি ও প্রহসনমূলক নির্বাচনের পর দখলদার আওয়ামী শাসকগোষ্ঠী কতৃর্ক জোরালোভাবে শুরু হয়েছে বিএনপিসহ বিরোধী দলগুলোর নেতাকর্মীদের ওপর নানা কায়দায় অবর্ণনীয় জুলুম-নির্যাতন। ডামি আওয়ামী ফ্যাসিস্ট সরকার তাদের অবৈধ ক্ষমতা ধরে রাখার লক্ষ্যে দেশব্যাপী বিরোধী দল ও মতের মানুষদের ঘায়েল করতে লাগামহীন গতিতে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন মামলা দায়েরের মাধ্যমে আদালতকে দিয়ে ফরমায়েশি সাজা প্রদান এবং জামিন নামঞ্জুর করে কারান্তরীণ করতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে।

তিনি বলেন, বিরোধী নেতাকর্মীদের ওপর জুলুম চালানোর উদ্দেশ্যই হচ্ছে-দেশের বিরোধী দলগুলো যেন দখলদার আওয়ামী সরকারের স্বেচ্ছাচারী শাসনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে সাহস না পায়। মিথ্যা মামলায় বিএনপি নেতাকর্মীদের সাজা প্রদান ও জামিন না দিয়ে কারাগারে পাঠানোকে কতৃর্ত্ববাদী আওয়ামী সরকার এখন তাদের প্রাত্যহিক কর্মসূচিতে পরিণত করেছে।

বিএনপি মহাসচিব বিবৃতিতে হাবিবুর রশীদ হাবিবসহ উল্লিখিত নেতৃবৃন্দের সাজা বাতিল, তাদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার ও অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তির জোর আহ্বান জানান।

এদিকে অপর এক বিবৃতিতে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুস সালাম এবং সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনু সাজাপ্রাপ্ত ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সদস্য লতিফুল্লাহ জাফরু, বংশাল থানাধীন ৩৩ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সহসভাপতি মো. মাকসুদ হোসেন এবং সদস্য মোহাম্মদ আরিফ হাসানের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

নেতৃদ্বয় বলেন, এভাবে মিথ্যা মামলায় আদালতকে দিয়ে ফরমায়েশি সাজা প্রদান ও জামিন নাকচের মাধ্যমে নেতাকর্মীদের কারান্তরীণ করে জুলুমবাজ ডামি আওয়ামী সরকার তাদের অবৈধ ক্ষমতাকে দীর্ঘমেয়াদে ভোগ করতে পারবে না। কারণ জনগণ যেহেতু ৭ জানুয়ারির ডামি নির্বাচন প্রত্যাখান করেছে সেহেতু আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্য দিয়েই সরকারের পতন ঘটাতে বদ্ধপরিকর।

নেতৃদ্বয় অবিলম্বে উল্লিখিত নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা ও বানোয়াট মামলা প্রত্যাহার, সাজা বাতিল এবং নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানান।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত