শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

জীবাশ্ম জ্বালানিতে বিনিয়োগ বন্ধের দাবি তরুণদের

আপডেট : ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৩৪ পিএম

ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে জীবাশ্ম জ্বালানিতে বিনয়োগ বন্ধ ও এর পরিবর্তে টেকসই প্রকল্প এবং নবায়নযোগ্য শক্তিতে বিনিয়োগের দাবিতে জলবায়ু ধর্মঘট করেছে নির্ভয় ফাউন্ডেশন। ফিক্স দ্যা ফাইনান্স দাবিতে আজ শুক্রবার ঢাকার জাতীয় প্রেস ক্লাব, নেত্রকোনা জেলা প্রেস ক্লাব ও সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলা প্রেস ক্লাবের সামনে জলবায়ু ধর্মঘটে অংশ নেন নির্ভয় ফাউন্ডেশনের সদস্যরা।

এ সময় জলবায়ু সুরক্ষা ও জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিতে জীবাশ্ম জ্বালানিতে অর্থায়ন বন্ধ, নবায়নযোগ্য শক্তির সম্প্রসারণ ও টেকসই কৃষিতে বিনিয়োগ বাড়ানোর আহ্বান জানান তরুণ জলবায়ু আন্দোলনকারীরা। তরুণরা বলেন, পুঁজিবাদী মানসিকতা নিয়ে সর্বোচ্চ গ্রিনহাউস গ্যাস নির্গমণকারী উন্নত দেশগুলো জীবাশ্ম জ্বালানিতে অর্থায়নের মাধ্যমে জলবায়ু সংকট সৃষ্টি করছে, যা পৃথিবীকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাচ্ছে। এই অবস্থায় জীবাশ্ম জ্বালানির পরিবর্তে টেকসই প্রকল্প এবং নবায়নযোগ্য শক্তির ক্ষেত্রে বিনিয়োগের আহ্বান এসেছে গ্লোবাল ক্লাইমেট স্ট্রাইকে।

এই ধর্মঘটের মধ্য দিয়ে তরুণ জলবায়ু কর্মীরা স্লোগান, প্ল্যাকার্ড, চিত্রকর্ম, এবং পোস্টার প্রদর্শনের মধ্য দিয়ে জলবায়ু সুবিচারের দাবি জানান। এ সময় এখনই জীবাশ্ম জ্বালানিতে বিনিয়োগ বন্ধ করতে হবে এই মর্মে ‘ফিক্স দ্য ফাইন্যান্স’, ‘নবায়নযোগ্য জ্বালানিতে বিনিয়োগ বৃদ্ধি করো’, ‘ক্ষতিকারক কৃষি চর্চায় বিনিয়োগ বন্ধ করো’, ‘ক্লাইমেট জাস্টিস নাউ’ এবং ‘জলবায়ু সহনশীল টেকসই কৃষি চর্চায় বিনিয়োগ করুনসহ ইত্যাদি লেখা ফেস্টুন ও প্ল্যাকার্ড হাতে অবস্থান নেন স্ট্রাইকে যোগ দেওয়া জলবায়ু আন্দোলনকারীরা।

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে অবস্থান ধর্মঘট শেষে তরুণরা র‍্যালি করতে করতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে জড়ো হন এবং স্লোগানে মুখরিত করেন। এ ছাড়া নেত্রকোনা জেলা প্রেস ক্লাবের সামনে মুখে কালো কাপড় বেঁধে প্রতিবাদ জানান নির্ভয়ের তরুণ জলবায়ু কর্মীরা।

তরুণ জলবায়ু কর্মী ও নির্ভয় ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা আরিফুল ইসলাম জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ধর্মঘটে বক্তব্যে বলেন, ‘উন্নত বিশ্ব জীবাশ্ম জ্বালানি উত্তোলন ও বিক্রয়ের মাধ্যমে পৃথিবীকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যাচ্ছে। সারা পৃথিবীর তরুণরা আজ একত্রিত হয়ে এই অবিচারের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলেছে যেন জীবাশ্ম জ্বালানিতে অর্থায়ন বন্ধ এবং নবায়নযোগ্য জ্বালানি ও টেকসই কৃষি চর্চায় বিনিয়োগ বৃদ্ধি পায়। আমরা টেকসই ও নিরাপদ পৃথিবীর দাবিতে একত্র হয়েছি।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত