বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

চোটাক্রান্ত সৌম্য থাকলেও তাইজুল নেই যে কারণে

আপডেট : ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:০৪ পিএম

শ্রীলঙ্কা সিরিজের শেষ ম্যাচে ফিল্ডিংয়ের সময় পায়ে চোট পেয়ে মাঠ ছেড়েছিলেন সৌম্য সরকার। এখনও পুরোপুরি সেরে উঠেননি তিনি। আছেন পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায়। তাই খেলতে পারেননি ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের কোনো ম্যাচে। তবু তাকে রাখা হয়েছে জিম্বাবুয়ে সিরিজের প্রস্তুতি ক্যাম্পের দলে। অন্যদিকে একই সিরিজে চোটাক্রান্ত হন স্পিনার তাইজুল ইসলামও। তিনিও আছেন পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায়। তবে তাকে ডাকা হয়নি এই ক্যাম্পে।

প্রস্তুতি ক্যাম্পের ১৭ জনের দল থেকেই চূড়ান্ত করা হবে জিম্বাবুয়ে সিরিজের স্কোয়াড। এমনকি বিশ্বকাপের দল সাজানোর ক্ষেত্রেও প্রাধান্য দেওয়া হবে তাদেরকে। তাই সেরে না উঠলেও কেন সৌম্যকে রাখা হয়েছে ক্যাম্পে, তার ব্যাখ্যা অবশ্য দিয়েছেন বিসিবির প্রধান নির্বাচক গাজী আশরাফ হোসেন লিপু।

ক্যাম্পে সুযোগ পাওয়াদের তালিকা প্রকাশের পর তিনি মুখোমুখি হন সংবাদমাধ্যমের। সেখানেই জানালেন, মূলত দলের সঙ্গে রাখতেই তাকে নেওয়া হয়েছে দলে। এ বিষয়ে লিপু বলেন, ‘সৌম্য সরকার সম্পূর্ণ সুস্থ নন। তিনি চোট থেকে ফেরার প্রক্রিয়ায় আছেন। সেখানেও তার একটা নিবিড় পর্যবেক্ষণ হবে। তবে কৌশলগত দিক থেকে যে লেকচারগুলো হবে, সেগুলোতে যেন অংশ নিতে পারেন, তাই তিনি দলের সঙ্গে থাকবেন।’

বাদ পড়াদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য একজন বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল । পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায় থাকা তাইজুলের বদলে আরেক বাঁহাতি স্পিনার তানভির ইসলামকে ডাকা হয়েছে প্রস্তুতি ক্যাম্পে। তাকে না রাখার কারণ হিসেবে বিসিবির নির্বাচক হান্নান সরকার জাতীয় একটি পোর্টালকে জানান, টেস্ট ক্রিকেটের ব্যস্ত সূচির কথা মাথায় রেখেই মূলত তাইজুলকে বাইরে রেখেছেন তারা।

হান্নান বলেন, ‘তাইজুল এখনও পুরোপুরি সুস্থ হয়নি। পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায় আমরা তাড়াহুড়ো করতে চাইছি না। যেহেতু সামনে টেস্ট আছে অনেক। তাই সময় নিয়ে পুরোপুরি ফিট হওয়ার অপেক্ষা করব। এই সিরিজে তাকে দেখা যাবে না। এছাড়া বাঁহাতি স্পিনার তানভির ইসলামকে নেওয়া হয়েছে। তাকেও আমরা দেখতে চাচ্ছি কেমন করে।’

এই ক্যাম্পে ডাকা হয়নি মেহেদি হাসান মিরাজকেও। তবে তিনি আছেন বিকল্প হিসেবে ভাবনায়। প্রধান নির্বাচকের ভাষায়, ‘যদি কোনো অফ স্পিনার চোটে পড়ে, তাহলে মেহেদি হাসান মিরাজ আছেন। তার যথেষ্ট টি-টোয়েন্টির অভিজ্ঞতা আছে, কোচের দিকনির্দেশনা সম্পর্কেও তিনি জানেন। সে রকম দু-একজন হয়তো বাইরে থাকবেন আপাতত, যাদের ঠিক প্রয়োজন নেই। বিশ্বকাপের মূল দলের জন্য মূলত এই দলটা প্রাধান্য পাবে বলতে পারেন।’

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে আগামী ৩ মে শুরু হবে টি-টোয়েন্টি সিরিজ। একই মাঠে পরের দুই ম্যাচ ৫ ও ৭ তারিখ। এরপর ঢাকায় ফিরে শেষ দুই ম্যাচ ১০ ও ১২ মে।

 

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত