শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

প্রকল্পের নামে ৪ লাখ গাছ কাটার সিদ্ধান্তে ক্ষুব্দ বিরোধীদলীয় নেতা 

আপডেট : ১২ মে ২০২৪, ১০:৩৬ পিএম

তিস্তা সেচ প্রকল্প উন্নয়নে ৪ লাখ গাছ কাটার সিদ্ধান্তে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিরোধী দলের নেতা ও জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান জি এম কাদের। বন বিভাগের এ সিদ্ধান্তকে তিনি আত্মঘাতী এবং ক্ষমার অযোগ্য  আখ্যা দিয়ে গাছ কাটা বন্ধ করে বনায়নের দাবি জানিয়েছেন। 

রোববার (১২ মে) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে গাছ কাটা বন্ধ রেখে, নতুন করে বনায়নের দাবিও জানান সাবেক এই মন্ত্রী।

তিনি বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের অভিঘাতে দেশ এখন বসবাসের অনুপযোগী হয়ে পড়ছে। এমন বাস্তবতায় দেদার গাছ কাটার সিদ্ধান্ত আত্মঘাতী ও ক্ষমার অযোগ্য।

গণমাধ্যমের প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে জি এম কাদের বলেন, তিস্তা সেচ প্রকল্পের প্রধান ক্যানেলসহ টারশিয়ারি এবং সেকেন্ডারি খাল সংস্কার ও সম্প্রসারণের নামে ৪ লাখ গাছ কাটছে বন বিভাগ। ইতোমধ্যেই দিনাজপুরে খালের নীলফামারী সদরের চান্দের হাট বাহালীপাড়া এলাকায় অন্তত ২০টি গাছ কাটা হয়েছে। ওই এলাকায় এর আগেও গাছ কাটা হলেও নতুন করে বনায়ন করা হয়নি। এর বিরূপ প্রভাবে তিস্তার অনেকাংশ মরুভূমি হতে চলেছে।

তিনি বলেন, নীলফামারী সদর ও ডিমলা উপজেলার প্রকল্প এলাকায় ইতোমধ্যেই ৫০ শতাংশ গাছ কাটা হয়েছে। প্রকল্প প্রণয়ন ও বাস্তবায়নে পরিবেশ রক্ষার বিষয়সমূহ গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করা স্বাভাবিক নিয়মের মধ্যেই অন্তর্ভুক্ত। তথাপি প্রকল্প বাস্তবায়নে এত বিপুল সংখ্যক বৃক্ষ নিধন কেনো অবশ্যম্ভাবী হয়ে দাঁড়াল এটা বোঝা মুশকিল। সমালোচকদের মতে প্রকল্প বাস্তবায়নের সময় দুর্নীতি মাধ্যমে অর্থ উপার্জনের অতিরিক্ত বৃক্ষ কর্তন করে বিক্রির মাধ্যমে আরও অধিক মুনাফা অর্জনই এ ধরনের প্রকল্প গ্রহণের উদ্দেশ্য কি না তা তদন্ত করা প্রয়োজন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত