মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

সেপটিক ট্যাংক থেকে ‘এমপি আনারের লাশের’ কতটুকু উদ্ধার হলো

আপডেট : ২৮ মে ২০২৪, ১০:৫৮ পিএম

কলকাতার নিউটাউনের সঞ্জীভা গার্ডেনের সেপটিক ট্যাংক থেকে খণ্ডিত মাংস উদ্ধার করা হয়েছে। ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনারের নেতৃত্বে ডিবির একটি টিম ও কলকাতা সিআইডি পুলিশের উপস্থিতিতে সঞ্জীভা গার্ডেনের সেপটিক ট্যাংক থেকে প্রায় ৩-৪ কেজি মাংস উদ্ধার করা হয়। তবে সেটি এমপি আনোয়ারুল আজীম আনারের মৃতদেহের খণ্ডিত অংশ কিনা, তা ফরেনসিক পরীক্ষার পর জানা যাবে। 

এদিকে টেলিভিশনকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে সঞ্জীভা গার্ডেনের একজন মালি সিদ্ধেশ্বর মণ্ডল জানান, একটি ম্যানহোল চেম্বার থেকে অনেকখানি মাংস উদ্ধার করতে দেখেছেন তিনি। পরিমাণে তা হতে পারে তিন থেকে চার কেজি।

তিনি বলেন, যাকে খুন করা হয়েছে, তাকে ছোট ছোট পিস করে টয়লেটের প্যানের মধ্যে দিয়ে ফ্ল্যাশ করে দেওয়া হয়েছে। সেই মাংসটা পাইপের মধ্য দিয়ে সেপটিক ট্যাংকে গিয়ে জমা হয়। সেখান থেকে যিনি মাংসগুলো উঠিয়েছেন তিনি ভূষণ শিকারী, আমাদের বোনজামাই হন। তিনি সেপটিক ট্যাংক পরিষ্কারের কাজ করেন।

সিদ্ধেশ্বর মণ্ডল বলেন, ওপরে ওঠানো মাংসের পরিমাণ হবে তিন থেকে চার কিলো। এগুলো জলের মধ্যে ছিল, কোনো পলিথিনে প্যাঁচানো ছিল না। পিসগুলো ছোট ছোট কিমা করা হয়েছে একেকটা পাকোড়ার সাইজের।

সিদ্ধেশ্বর জানান, সঞ্জীভা গার্ডেনে প্রতিটি ভবনের জন্য আলাদা আলাদা সেপটিক ট্যাংক রয়েছে। প্রতিটি সেপটিক ট্যাংকের ঢাকনা রয়েছে পার্কিং লটে। ঢাকনা খুলে ওই মাংসগুলো উদ্ধার করা হয়। আর সেগুলো মানুষের মাংস না হলে ওখানে এতগুলো মাংস আসবে কোত্থেকে। 

এই বিষয়ে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার হারুন অর রশীদ মোবাইল ফোনে দেশ রূপান্তরকে বলেন, আজ মঙ্গলবার দিনভর সঞ্জীভা গার্ডেনের সেফটিক ট্যাংক ও সুয়ারেজ লাইন ভাঙা হয়। সেখানে মানুষের মৃতদেহের অংশ সাদৃশ কিছু বস্তু উদ্ধার করা হয়েছে। আমরা সেটা পরীক্ষাগারে পাঠিয়েছি। তারা ডিএনএ পরীক্ষাসহ প্রয়োজনীয় পরীক্ষা করে রিপোর্ট দিবে। রিপোর্ট পাওয়া পর্যন্ত আমাদের অপেক্ষা করতে হবে। 

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত