শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

প্রেমের ফাঁদে পড়ে জীবনের সব সঞ্চয় হারালেন ৭৫ বছরের বৃদ্ধ!

আপডেট : ০৮ জুন ২০২৪, ০৬:৩৩ পিএম

প্রেমে পাগল হয়ে হুঁশ হারিয়ে বসেন অনেকেই। প্রথম প্রথম প্রেমে পড়লে তো দিনক্ষণের হিসেবও থাকে না। তখন প্রতিদিনই যেন মনে হয় ভ্যালেন্টাইন ডে। শুরুর দিকে প্রেমে হাবুডুবু খেলে এমন অবস্থা হয় অনেকেরই। প্রেমে অন্ধ হয়ে ঠিক-ভুলের পার্থক্য করতেও হয়তো ভুলে যান। এসব কিছুই ভিত্তিহীন নয়। তবে প্রেমের চক্করে শেষ বয়সে এসে নিজের সারা জীবনের সঞ্চয় খুইয়ে বসেছেন কেউ, এমনটা শুনলে অবাকই লাগে। আর সেই অবাক করা ঘটনা ঘটেছে মার্কিন মুলুকে। সেখানে প্রেমে পড়ে প্রায় ৬ কোটি টাকা খুইয়েছেন ৭৫ বছরের এক বৃদ্ধ।

ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের প্রতিবেদন অনুযায়ী, আমেরিকায় বসবাসকারী ৭৫ বছরের ওই বৃদ্ধ অনলাইন জালিয়াতির শিকার হয়েছেন। এই জালিয়াতির সূত্রপাত হয় এক সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে। জানা যাচ্ছে, এখানে এক নারীর সঙ্গে পরিচয় হয় ওই বৃদ্ধের। সেই নারী নিজেকে চীনা নাগরিক হিসেবে পরিচয় দেন। নাম বলেন ভায়োলেইন চেন। 

এমনকী তিনি সান ফ্রান্সিসকোতে থাকেন এবং নিজেকে গোল্ড ফিউচার্স ট্রেডার্স বলেও দাবি করেন। নিজের ব্যয়বহুল জীবনযাত্রার কিছু ছবিও শেয়ার করে নেন ওই বৃদ্ধের সঙ্গে। ধীরে ধীরে দুজনের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে ওঠে। খুব কম সময়েই বার্তালাপ পৌঁছে যায় হোয়াটসঅ্যাপেও।

হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট শুরু হওয়ার পরই ভায়োলেইন ওই বৃদ্ধের আরও ঘনিষ্ঠ হতে শুরু করেন বলে জানা যায়। বৃদ্ধের খাওয়া-দাওয়া থেকে শুরু করে ওয়ার্কআউট, সমাজসেবামূলক কাজসহ বিভিন্ন খুঁটিনাটির খোঁজ নিতে থাকেন। এসব বিষয়ে তাদের দীর্ঘক্ষণ বার্তালাপ চলে নিয়মিত। 

এর মধ্যেই একটি ট্রেডিং প্ল্যাটফর্মে একসঙ্গে টাকা বিনিয়োগের প্রস্তাব দেন ভায়োলেইন। তার দাবি এই ট্রেডিং প্ল্যাটফর্মটি তার কাকার। এই প্ল্যাটফর্মে অ্য়াকাউন্ট বানানো থেকে শুরু করে প্রাথমিকভাবে ১৫০০ ডলার বিনিয়োগ করতে ওই বৃদ্ধকে সাহায্য করেন ওই নারী।

তার দাবি এই ট্রেডিং প্ল্যাটফর্মটি তার কাকার। এই প্ল্যাটফর্মে অ্য়াকাউন্ট বানানো থেকে শুরু করে প্রাথমিকভাবে ১,৫০০ ডলার বিনিয়োগ করতে ওই বৃদ্ধকে সাহায্য করে সে।

এইভাবে নারীর প্রেমের ফাঁদে পড়ে নিজের সমস্ত স্টক, মিউচুয়াল ফান্ড বেঁচে দেন বৃদ্ধ। এমনকী সেই ট্রেডিং অ্য়াকাউন্টে ৩ লক্ষ ডলারের কাছাকাছি জমাও করেন। অ্য়াপে দেখায় দুজনের মিলিত বিনিয়োগ দেড় মিলিয়ন ডলার। এদিকে যখন নিজের টাকা তোলার জন্য আবেদন করেন বৃদ্ধ, তখন তাকে টাকা ফেরত নেওয়ার জন্য অতিরিক্ত টাকা চার্জ করা হয়। 

সেজন্য তিনি তার বাকি যেটুকু সঞ্চয় ছিল সেটাও দিয়ে দেন। যার ফলে তার মোট ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়ায় ৭,১৬,২১২ ডলার। ভারতীয় মুদ্রায় যার পরিমাণ ৫ কোটি ৯৭ লক্ষ ৩৯ হাজার ৯৫৯ টাকা। এফবিআইতে জানানোর পরেও হারানো টাকা ফেরত পাননি বৃদ্ধ। অর্থাৎ প্রেমের মাশুল হিসেবে জীবনের সব সঞ্চয় হারালেন ৭৫ বছরের বৃদ্ধ।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত