বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

মোদির মন্ত্রিসভায় জায়গা পেলেন যে সাত নারী

  • গত মেয়াদে ১০ জন নারী মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী থাকলেও এবার মোদির মন্ত্রিপরিষদে সাত নারী
  • সাবেক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি, প্রতিমন্ত্রী ভারতী পাওয়ারসহ বাদ পড়েছেন কয়েকজন
আপডেট : ১০ জুন ২০২৪, ০৩:০৬ পিএম

গতকাল রোববার টানা তৃতীয় মেয়াদে শপথ গ্রহণ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। অনুষ্ঠানে আরও শপথ নেন মোদির নেতৃত্বাধীন মন্ত্রিসভার ৭২ জন মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রী। তবে এবার মোদির মন্ত্রিপরিষদে কমেছে নারীর সংখ্যা।

২০১৯ সালের মোদির নেতৃত্বাধীন মন্ত্রিপরিষদে ১০ জন নারী মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী থাকলেও এবার নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন নতুন মন্ত্রিপরিষদে জায়গা পেয়েছেন সাত নারী।

সাবেক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি, প্রতিমন্ত্রী ভারতী পাওয়ার, সাধ্বী নিরঞ্জন জ্যোতি, দর্শনা জারদোশ, মীনাক্ষী লেখি ও প্রতিমা ভৌমিক এবার মন্ত্রিসভায় জায়গা পাননি। খবর এনডিটিভি।

এবার মোদির মন্ত্রিপরিষদে যেসব নারীরা স্থান পেয়েছেন তারা হলেন,

১. নির্মলা সীতারমণ

বিগত সরকারে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন রাজ্যসভার সদস্য নির্মলা সীতারমণ। এছাড়া এবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় পূর্ণমন্ত্রী হিসেবে ঠাই পাওয়া দুজন নারীর মধ্যেও একজন তিনি। এই নিয়ে মন্ত্রিপরিষদে তৃতীয়বার স্থান পেলেন সীতারমণ।

২. অন্নপূর্ণা দেবী (বিজেপি)

এবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় পূর্ণ মন্ত্রী হিসেবে স্থান পাওয়া দ্বিতীয় নারী হলেন ঝাড়খন্ডের নেত্রী অন্নপূর্ণা দেবী। আগে আরজিডির সঙ্গে যুক্ত থাকলেও স্বামীর মৃত্যুর পর বিজেপিতে যোগ দেন অন্নপূর্ণা। ঝাড়খন্ড ও অবিভক্ত বিহারে রাজ্যপর্যায়ের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। এ রাজ্যে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনেও বিজেপির পক্ষে তাঁকে গুরুত্বপূর্ণ নেত্রী হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে।

৩. সাবিত্রী ঠাকুর (বিজেপি)

প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন ৪৬ বছর বয়সী সাবিত্রী ঠাকুর। মধ্যপ্রদেশের ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর এই নেত্রী ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে ধার আসন থেকে জয়ী হয়েছেন। এর আগে ২০১৯ সালের নির্বাচনে মনোনয়ন পাননি তিনি।

৪. নিমুবেন বামভানিয়া (বিজেপি)

গুজরাটে বিজেপির হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে জয়ী হওয়া তিন নারীর একজন নিমুবেন বামভানিয়া। গতকাল তাঁকে প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছে। ভাবনগর আসনে আম আদমি পার্টির প্রতিদ্বন্দ্বী উমেশ মাকওয়ানাকে ৪ লাখ ৫৫ হাজার ভোটের ব্যবধানে হারিয়েছেন ৫৭ বছর বয়সী এই নারী।

এর আগে সাবেক এই শিক্ষক ২০০৯-১০ ও ২০১৫-১৮—এ দুই মেয়াদে ভাবনগরের মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০১৩ থেকে ২০২১ সালের মধ্যবর্তী সময়ে বিজেপির নারী মোর্চা রাজ্যের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে তিনি দায়িত্ব পালন করেছেন।

৫. রক্ষা খারসে (বিজেপি)

এবার প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন সাবেক বিজেপি নেতা এবং মহারাষ্ট্রের তিনবারের এমপি একনাথ খারসের পুত্রবধূ রক্ষা খারসে। ২০১৩ সালে স্বামী নিখিল মহারাষ্ট্রের বিধানসভা নির্বাচনে এনসিপি নেতা মনীশ জৈনর কাছে সামান্য ব্যবধানে হারার পর আত্মহত্যা করেন। এরপর ২০১৪ সালে রাভিরে মনীশ জৈনর বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে লোকসভা নির্বাচনে জয়ী হন রক্ষা খারসে। ২০১৯ সালে তিনি আবারও নির্বাচিত হন। আর এই বছর এনসিপি প্রার্থী শ্রীরাম পাতিলের বিরুদ্ধে প্রায় তিন লাখ ভোটের ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন।

৬. শোভা কারান্দলাজে (বিজেপি)

আগের সরকারে কেন্দ্রীয় কৃষিবিষয়ক প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করা ধর্মীয় চরমপন্থার কঠোর সমালোচক শোভা কারান্দলাজে এবারও মোদির মন্ত্রিসভায় জায়গা পেয়েছেন। তিনি তিনবারের লোকসভা সদস্য। বেঙ্গালুরু নর্থ আসনে কংগ্রেস নেতা রাজিব গৌদাকে পরাজিত করেছেন তিনি। এছাড়া বেঙ্গালুরুর প্রথম নারী এমপি শোভা।

৭. অনুপ্রিয়া প্যাটেল (আপনা দল)

অনুপ্রিয়া প্যাটেল আবারও কেন্দ্রীয় মন্ত্রিপরিষদে ফিরেছেন। কুর্মি সম্প্রদায়ের এই নেত্রী প্রয়াত নেতা ও আপনা দলের প্রতিষ্ঠাতা সোনিলাল প্যাটেলের মেয়ে। গত মেয়াদে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন অনুপ্রিয়া।

 

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত