সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

অন্ধ্রপ্রদেশের উপমুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন পবন কল্যাণ!

আপডেট : ১১ জুন ২০২৪, ০৬:৫০ পিএম

ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচনে তেলেগু দেশম পার্টির (টিডিপি) সঙ্গে জোট বেধে ক্ষমতায় ফিরেছে বিজেপি। চন্দ্রবাবু নাইডু বসতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী পদে। আগামীকাল তার শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান। এরই মধ্যে তার মন্ত্রিসভা নিয়ে জল্পনা শুরু হয়ে গিয়েছে। শোনা যাচ্ছে জনপ্রিয় অভিনেতা পবন কল্যাণ হতে চলেছেন তার উপমুখ্যমন্ত্রী।

ভোটের আগে বিজেপি ও টিডিপির মধ্যে জোট গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন জনসেনা পার্টির (জেএনপি) প্রধান ও জনপ্রিয় অভিনেতা পবন কল্যাণ। নির্বাচনে ২১টি আসনে লড়াই করে সবগুলোতেই জয়ী হয়েছে পবন কল্যাণের দল। দলীয় সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যমে বলা হচ্ছে, সুযোগ কাজে লাগিয়ে অন্ধ্রের উপমুখ্যমন্ত্রীর পদ চাইতে পারেন পবন।

ইন্ডিয়া টুডের খবরে বলা হয়, বুধবার (১২ জুন) অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেয়ার কথা রয়েছে টিডিপি সভাপতি চন্দ্রবাবু নাইডুর। শপথ অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিরও উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।

তার আগে মঙ্গলবার (১১ জুন) জনসেনার বিধায়করা এক বৈঠকে পবন কল্যাণকে অন্ধ্রপ্রদেশ বিধানসভায় দলীয় নেতা হিসেবে নির্বাচিত করেছেন। সূত্র জানিয়েছে, বৈঠকে আসন্ন অন্ধ্রপ্রদেশের মন্ত্রিসভায় মুখ্যমন্ত্রীসহ পাঁচটি মন্ত্রণালয় চাইবে জনসেনা।

আগামীকাল বুধবার সকাল ১১টা ২৭ মিনিটে অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেবেন চন্দ্রবাবু নাইডু। একই সঙ্গে শপথ নেবেন পবন কল্যাণও। মনে করা হচ্ছে সেদিনই হয়তো উপমুখ্যমন্ত্রী পদে তাকে বসানোর সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়ে যাবে। এখন অবশ্য সবটা নিয়েই জল্পনা চলছে রাজনৈতিক মহলে। আজই সরকার গঠনের দাবি নিয়ে রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করবেন এনডিএ জোটের নেতারা।

ইন্ডিয়া টুডের প্রতিবেদন মতে, অন্ধ্রপ্রদেশে এবারের মন্ত্রিসভায় আসন ভাগাভাগিতে টিডিপি ২০টি, জনসেনা উপমুখ্যমন্ত্রীসহ তিনটি এবং বিজেপি দুটি মন্ত্রণালয় পেতে পারে। যদিও মুখ্যমন্ত্রীর শপথ গ্রহণের পরই সবকিছু স্পষ্ট হবে।

গত ১৩ মে অন্ধ্রপ্রদেশের ২৫টি লোকসভা আসনের সঙ্গে ১৭৫টি বিধানসভায় এক দফায় ভোট হয়েছিল। সেখানে জগনমোহন রেড্ডির দল ওয়াইএসআরসিপিকে হারাতে বিজেপি এবং জেএনপির সঙ্গে জোট করেছিল চন্দ্রবাবু নাইডুর টিডিপি।

অন্ধ্রপ্রদেশের লোকসভা নির্বাচনে চন্দ্রবাবুর দল পেয়েছে ১৬টি আসন। জোটসঙ্গী বিজেপি এবং জনসেনার দখলে যথাক্রমে তিনটি এবং দুটি করে আসন। অন্যদিকে, জগনের দল মাত্র চারটি আসনে জিতেছে। বিধানসভা নির্বাচনেও ভরাডুবি হয়েছে ওয়াইএসআরসিপির।

১৯৯৫ সালে অন্ধ্রপ্রদেশের প্রথম মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন চন্দ্রবাবু নাইডু। সেসময় অবিভক্ত অন্ধ্রপ্রদেশ ছিল। পর পর ২ বার মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন নাইডু। তারপরে ভাগ হয়ে যায় অন্ধ্রপ্রদেশ। তখনও তিনি মুখ্যমন্ত্রী পদে ছিলেন। অন্ধ্র এবং তেলেঙ্গানা ভাগের পর প্রথম নির্বাচনে ধরাশায়ী হয়েছিল টিডিপি। সেসময় ক্ষমতায় বসে ওয়াইএসআর কংগ্রেস। মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন জগন্মোহন রেড্ডি। তারপরে আবার ক্ষমতায় ফিরলেন নাইডু।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত