মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

চাকরির সাক্ষাৎকারে সফল হতে এই কাজগুলো করুন

আপডেট : ২৪ নভেম্বর ২০১৮, ১২:১৪ পিএম

কোনো প্রতিষ্ঠানে কাজের সুযোগ পেতে হলে চাকরিপ্রার্থীকে সাক্ষাৎকার পর্বের মধ্যদিয়ে যেতে হয়। যে প্রতিষ্ঠানে বা পদে নিয়োগ দেওয়া হবে, সেখানে আপনি কতটুকু উপযুক্ত যেটা যাচাই করা হয়। সাক্ষাৎকার পর্বে আপনাকে প্রমাণ করতে হবে যে আপনি প্রতিষ্ঠানের জন্য উপযুক্ত প্রার্থী। এটা প্রামাণ করার জন্য আপনাকে কিছু প্রস্তুতি নিতে হবে। সাক্ষাৎকারের প্রস্তুতি হিসেবে কিছু টিপস তুলে ধরেছে ক্যারিয়ার টিপস বিষয়ক সাইট ডউ ডটকম।

১. ইতিবাচক দিক, দক্ষতা এবং কোনো অভিজ্ঞতা যেগুলো বায়োডাটাতে উল্লেখ করেছেন, সেগুলোর বিষয়ে আলোচনার জন্য প্রস্তুতি নিন।

২. আপনার উপর অর্পিত কাজের বর্ণনা সম্পর্কে কী জানেন সেটার পর্যালোচনা করুন। প্রতিষ্ঠান বা পদ সম্পর্কিত বিভিন্ন ওয়েবসাইট, ব্লগ এবং অনলাইনের অন্যান্য সাইটের সাহায্য নিতে পারেন।

৩. যারা সাক্ষাৎকার নেবেন, তাদেরকে ৪-৫টা অর্থপূর্ণ প্রশ্ন করার জন্য প্রস্তুতি নিয়ে আসুন। প্রশ্ন করলে আপনার বোঝাপড়ার মাত্রা বেড়ে যাবে। আগ্রহ এবং লেগে থাকলেই প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে জানতে পারবেন।

৪. ভালো সাক্ষাৎকারের জন্য শারীরিক ও মানসিকভাবেই প্রস্তুত থাকতে হয়। তাই নির্ধারিত দিনে পুরোদমে প্রস্তুত থাকতে হবে। সাক্ষাৎকারের দিন পর্যাপ্ত বিশ্রাম নিন।

৫. আরামদায়ক পোশাক পরবেন। সাক্ষাৎকারগ্রহীতা আপনার দক্ষতা দেখবেন পোশাক নয়।

৬. সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় চাপমুক্ত থাকুন। আনমনা হওয়া যাবে না। আপনি প্রকৃতপক্ষে কী সেটাই জানতে চায় প্রতিষ্ঠান।

৭. আপনি কী চিন্তা করছেন সেটার প্রতি আগ্রহ বেশি থাকবে প্রতিষ্ঠানের। তাই সাক্ষাৎকারের সময় আপনার ভাবনা নিয়ে ব্যাখ্যা করুন। কোনো টেকনিক্যাল বিষয়, সমস্যা ও তার সমাধান নিয়ে আপনার চিন্তার প্রতিফলনের ব্যাখ্যা দিন।

৮. সাক্ষাৎকার পর্ব হচ্ছে প্রতিষ্ঠানকে জানার সুযোগ। আর প্রতিষ্ঠানও আপনার সম্পর্কে জানবে। তাই কোনো দ্বিধা না করে প্রশ্ন করবেন।

৯. সাক্ষাৎকার পর্বের কিছুদিন আগে প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্য, উদ্দেশ্য, ব্যবসায়িক ক্ষেত্র- এগুলো সম্পর্কে জেনে নিন। প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইটে ভিজিট করে বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বিভিন্ন চ্যানেলগুলোর সাহায্য নিতে পারেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে প্রতিষ্ঠানের পেজ ফলো করে যুক্ত থাকতে পারেন।

১০. সাক্ষাৎকার প্রার্থী বেশি হলে এবং দীর্ঘসময়ের জন্য হলে ক্ষুধা লাগতে পারে। আপনি কাউকে দিয়ে স্ন্যাকস জাতীয় খাবার এনে খেতে পারেন। প্রার্থী একা বা কম হলে সতেজ থাকার জন্য বেভারেজ জাতীয় পানীয় পান করুন।

১১. সাক্ষাৎকার পর্বে নিজের সম্পর্কে বলার জন্য প্রস্তুত থাকুন। নিজের অভিজ্ঞতা, শক্তিশালী দিক, ক্যারিয়ারের প্রত্যাশা, এই পদে আপনি একজন শক্তিশালী প্রার্থী সেটা নিশ্চিত করতে হবে।

১২. আপনি যে পদে আবেদন করেছেন, সেটি সম্পর্কে ভালো ধারণা রাখতে হবে।

১৩. আপনার দুর্বল দিক এবং এর কারণগুলোও খুঁজে বের করতে হবে।

১৪. অধিকাংশ সাক্ষাৎকারেই আচরণগত ধরনের প্রশ্ন করা হয়। প্রার্থীর অতীত অভিজ্ঞতা জানতে চাওয়া হয়। ইন্টারনেটে ‘আচরণগত সাক্ষাৎকার প্রশ্ন’ সার্চ দিয়ে জেনে নিতে পারেন।

১৫. প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার আগে সময় নিন। এরপর গুছিয়ে উত্তর দেবেন।

১৬. সাক্ষাৎকারে আপনি এই পদে কেন আগ্রহী এবং এই প্রতিষ্ঠানে কেন কাজ করতে চান- সে সম্পর্কে অবগত থাকুন।

১৭. প্রথম সাক্ষাৎকার হলে কোনো বন্ধুর পরামর্শ নিন।

১৮. সাক্ষাৎকার শেষে বিজনেস কার্ড চেয়ে নেবেন যাতে করে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ধন্যবাদ জানিয়ে ইমেইল পাঠাতে পারেন।

 

   
সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত