রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

রাজশাহীতে ‘স্পিরিট পানে’ সাংবাদিকের মৃত্যু

আপডেট : ০১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০:৩৯ পিএম

রাজশাহীর বাঘায় হোমিওপ্যাথি দোকান থেকে ‘রেক্টিফায়েড স্পিরিট’ পানের পর সাংবাদিকসহ দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ এক হোমিও চিকিৎসককে আটক করেছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় রনি ও রাত ১১টায় সেলিম আহমেদ ভান্ডারী রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। চিকিৎসকরা বলছেন বিষাক্ত দ্রব্যের কারণে তাদের মৃত্যু হয়েছে।

সেলিম ভান্ডারী বাঘা উপজেলার মণিগ্রামের শামসুল ইসলামের ছেলে। রনি একই এলাকার আটঘরি গ্রামের সূর্যের ছেলে। সেলিম যায়যায়দিন ও রাজশাহীর সংবাদের বাঘা উপজেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করতেন।

বাঘা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহসীন আলী জানান, সেলিম ও রনি বুধবার রাতে মণিগ্রাম বাজারে ‘নিরাময় হোমিও হলে’ বসে রেক্টিফায়েড স্পিরিট পান করেন। তারা বাড়ি ফিরে অসুস্থ হয়ে পড়লে রাতেই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় রনি মারা যান। পরে  সেলিম ভান্ডারীর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে সন্ধ্যায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সাংবাদিক সেলিম ভান্ডারী রাত ১১টার দিকে মারা যান। ঘটনার পর পুলিশ তদন্তে নেমে ওই দোকান থেকে এক কার্টুন রেক্টিফায়েড স্পিরিট উদ্ধার করে বলে জানান ওসি মহসীন।

তিনি বলেন, প্রাথমিক তদন্ত, চিকিৎসকের মতামত, সুরতহাল প্রতিবেদন ও পরিবারের সদস্যদের কাছে দেওয়া সেলিমের জবানবন্দির ভিত্তিতে নিরাময় হোমিও হলের মালিক ও হোমিও চিকিৎসক মাজেদুর রহমানকে আটক করা হয়েছে।

তিনি জানান, শুক্রবার বেলা ১২টার দিকে মণিগ্রামের বাড়ি থেকে তাকে আটক করা হয়। এ ছাড়া পুলিশ ওই দোকান থেকে এক কার্টন রেক্টিফায়েড স্পিরিট উদ্ধার করেছে।

এ বিষয়ে সাংবাদিক সেলিমের চাচা কায়েম উদ্দিন বলেন, সেলিম মৃত্যুর আগে বলে গেছে, নিরাময় হোমিও হলে তাকে বিষাক্ত কিছু খাওয়ানো হয়েছিল। এরপর থেকে তার শরীর খারাপ হতে থাকে।

সাংবাদিক সেলিম আহম্মেদ ভান্ডারীর স্ত্রী সোনিয়া আক্তার বলেন, মৃত্যুর আগে সে আমাকে সব বলে গেছে। ডাক্তার মাসিদুল কারিম আমার স্বামীকে পরিকল্পিতভাবে বিষাক্ত কিছু খাইয়ে হত্যা করেছে।

সেলিম ভান্ডারীর চাচা জিন্নাত আলী ভান্ডারী ও আবুল কায়েম হোসেন ভান্ডারী বলেন, ভাজিতাকে ওই হোমিও ডাক্তার পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে। এর বিচার দাবি করছি।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত