শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ব্যবসাতেও সফল ৫ বলিউড তারকা

আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০১:৫৩ পিএম

বলিউডে সুপারস্টারদের মধ্যে অনেকেই আছে নানা ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। ফ্যাশন হাউস থেকে শুরু করে জিমনেশিয়াম কোনো না কোনো ব্যবসা করে যাচ্ছেন তারকা। তবে অধিকাংশই জড়িত প্রযোজক সংস্থার সঙ্গে। একই সঙ্গে সফল তারকা এবং ব্যবসায়ী এ রকম পাঁচজন অভিনেতা-অভিনেত্রীদের নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে বলিউডভিত্তিক সংবাদমাধ্যম মাসালা ডটকম।

শাহরুখ খান

শাহরুখ খান যিনি এসআরকে নামে পরিচিত তিনি মোশন পিকচার প্রোডাকশন কোম্পানির প্রতিষ্ঠান রেড চিলিস এন্টারটেইনমেন্টের কো-চেয়ারম্যান। এই প্রযোজনা সংস্থা থেকে সিনেমাসহ নানা ধরনের ভিজ্যুয়াল প্রযোজনা নির্মাণ করা হয়। এতে আছে অ্যানিমেশন নির্ভর কাজও। এ ছাড়া এসআরকে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) ক্রিকেট টিম কলকাতা নাইট রাইডার্সের মালিকও। এখন তিনি শিশুদের জন্য রিয়্যালিটি পার্কে বিনিয়োগে করার কথা ভাবছেন।     

শিল্পা শেঠি

আইপিএল টিম রাজস্থান রয়েলস দিয়ে ব্যবসায়ী হিসেবে আলোচনায় আসেন শিল্পা শেঠি। তার সঙ্গে ছিলেন স্বামী রাজ কুন্ড্রও। তবে রাজের বিরুদ্ধে আইপিএলে জুয়ার অভিযোগ আসলে রাজস্থান রয়েলসের শেয়ার বিক্রি করে দেন তারা। এরপরে নতুন ব্যবসায় জড়ান তিনি। ইতিমধ্যে শুরু করেছেন নিজস্ব প্রযোজনা সংস্থা। দিশকিয়াও নামে ২০১৪ সালে একটি ছবি প্রযোজনা করেন এ সংস্থা থেকে। তিনি স্পা ও সেলুনের ইন্ডিয়ান চেইন হাউস আয়োসিসের মালিকও।

সুনীল শেঠি

বলিউড তারকাদের মধ্যে প্রথম জিমের ব্যবসা শুরু করেন সুনীল শেঠি। দেশের ভারতের নানা শহরে তার জিম ব্যবসা বিস্তৃত। পপকর্ন এন্টারটেইনমেন্ট নামে একটি প্রযোজনা সংস্থার মালিকও তিনি। মিসচিফ নামে একটি সিরিজ বুটিক হাউসও আছে তার। একাধিক রেস্টুরেন্ট চালান তিনি। এসটু রিয়্যালিটি নামে বড় ধরনের একটি রিয়েল স্টেট কোম্পানির মালিক সুনীল।

টুইঙ্কেল খান্না

বাহারি মোমবাতি ডিজাইনে খ্যাতি একসময়ে পর্দা কাঁপানো টুইঙ্কেল খান্নার। তিনি এবং তার মা দুজনেই এখন মোমবাতির বড় ধরনের রপ্তানিকারক। মুম্বাইতে টুইঙ্কেলের হোয়াইট উইন্ডো নামে একটি ইন্টেরিয়র ফার্মও আছে। এ ব্যবসাতেও সুনাম কুড়িয়েছেন তিনি। সম্প্রতি তিনি সিনেমাতে প্রযোজনা করাও শুরু করেছেন। স্বামী অক্ষয় কুমার অভিনীত পেডম্যানের প্রযোজনা করেন টুইঙ্কেল।

অজয় দেবগন

ব্যবসাতে এগিয়ে আছেন অজয় দেবগনও। রোহা গ্রুপ নামে একটি ব্যবসায়িক গোষ্ঠীতে বিনিয়োগ করেছেন তিনি। গুজরাটের সোলার প্রজেক্ট নিয়ে কাজ করছে এ প্রতিষ্ঠান। নিজের নামে একটি প্রযোজনা সংস্থা আছে তার। ২০০০ সাল থেকে এ সংস্থা থেকে সিনেমা নির্মাণ শুরু করেন তিনি। তার নিজস্ব একটি ভিএফএক্স স্টুডিও আছে।  

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত