বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

নিউ জিল্যান্ডের কাছে ৮ উইকেটের হার বাংলাদেশের

আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০২:৪০ পিএম

ব্যাটিং ব্যর্থতার পর বোলিংয়েও তেমন কিছু করে দেখাতে পারল না বাংলাদেশ। সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে স্বাগতিক নিউ জিল্যান্ডের কাছে ৮ উইকেটে হার মেনেছে মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার দল।

বুধবার নেপিয়ারের ম্যাকলিন পার্ক স্টেডিয়ামে ৪৪.৩ ওভারেই জয়ের জন্য ২৩৩ রানের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় নিউ জিল্যান্ড। হারাতে হয় মাত্র দুই উইকেট।

কিউইদের দারুণ একটি শুরু এনে দেন মার্টিন গাপটিল ও হেনরি নিকোলসের ওপেনিং জুটি। মেহেদি হাসান মিরাজ ১০৩ রানের এই জুটিতে ফাটল ধরালেও থমকে যায়নি স্বাগতিক দলকে দমাতে পারেনি বাংলাদেশ। নিকোলস উইকেট ছাড়ার আগে ৮০ বলে পাঁচ চারে খেলেন ৫৩ রানের দায়িত্বশীল ইনিংস।

দলীয় ১৩৭ রানে দ্বিতীয় উইকেট হারায় নিউ জিল্যান্ড। অধিনায়ক কেইন উইলিয়ামসনকে উইকেট ছাড়া করেন মাহমুদউল্লাহ।

এরপর আর কোনো উইকেট হারায়নি ব্ল্যাক ক্যাপসরা। তৃতীয় উইকেট জুটিতে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন গাপটিল ও রস টেইলর।

১১৬ বলে আট চার ও চার ছক্কায় ১১৭ রানে অপরাজিত থাকেন গাপটিল। ওয়ানডেতে এটা তার পনেরোতম শতক। ৪৯ বলে ছয় চারে ৪৫ রানে অপরাজিত থাকেন টেইলর।

বাংলাদেশ দলের মূল বোলার মাশরাফী, মুস্তাফিজুর রহমান, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন-সবাই ছিলেন ব্যর্থ। কোনো উইকেট পাননি তারা।

এর আগে নির্ধারিত ওভারের সাত বল আগেই ২৩২ রানে গুটিয়ে যায় টসে হারা বাংলাদেশ। কিউই বোলারদের দুর্দান্ত নৈপুণ্যের সামনে ৪২ রানেই টপ-অর্ডারের চার ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে বিপর্যয়ে পড়ে গিয়েছিল অতিথি দল। এর মধ্যে দুই অঙ্ক স্পর্শ করার আগেই ফেরেন ওপেনার তামিম ইকবাল, লিটস দাস ও চার নম্বরে ব্যাটিংয়ে নামা মুশফিকুর রহিম।

দাপটের সঙ্গে ব্যাট চালাচ্ছিলেন সৌম্য সরকার। কিন্তু বড় ইনিংস খেলতে পারেননি। ২২ বলে পাঁচ চার ও এক ছক্কায় ৩০ করা এই ব্যাটসম্যান ফেরেন ম্যাট হেনরির বলে কট অ্যান্ড বোল্ড হয়ে।

উইকেটে মাটি কামড়ে পড়ে আছেন মিঠুন। ওয়ানডেতে তৃতীয় অর্ধশতক হাঁকানোর পথে মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে ২৯, সাব্বির রহমানের সঙ্গে ২৩ ও মেহেদি হাসান মিরাজের সঙ্গে গড়েন ৩৭ রানের জুটি।

আর অষ্টম উইকেটে সাইফউদ্দিনের সঙ্গে কার্যকরী গড়েন ৮৪ রানের কার্যকরী এক জুটি। ভয়ের কারণ হয়ে দাঁড়ানো এই জুটিকে থামান বাঁহাতি স্পিনার মিচেল স্যান্টনার। তার বলে সুইপ করতে গিয়ে সাইফউদ্দিন ক্যাচ দেন মিড উইকেটে দাঁড়িয়ে থাকা মার্টিন গাপটিলের হাতে। প্যাভিলিয়নের পথ ধরার আগে ৫৮ বলে তিন চারে ৪১ রান করেন বাংলাদেশ দলের এই পেস-অলরাউন্ডার।

সাইফের উইকেট ছাড়ার পর বেশিক্ষণ টিকে থাকতে পারেননি মিঠুন। দলীয় ২২৯ রানে লকি ফার্গুসনের পেসে পরাজয় মানেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। বোল্ড হওয়ার আগে ৯০ বলে করেন ৬২ রান। তার ইনিংসটিতে রয়েছে পাঁচটি চারের মার।

মিঠুন উইকেট ছাড়ার পর তিনরানের মধ্যে বাকি উইকেটটি হারিয়ে বসে বাংলাদেশ।

নিউ জিল্যান্ডের বোলারদের মধ্যে তিনটি করে উইকেট নেন ট্রেন্ট বোল্ট ও স্যান্টনার। দুটি করে উইকেট নেন ম্যাট হেনরি ও ফার্গুসন।

অনবদ্য সেঞ্চুরিতে ম্যাচ সেরা হন নিউ জিল্যান্ডের ওপেনিং ব্যাটসম্যান গাপটিল।

১৬ ফেব্রুয়ারি ক্রাইস্টচার্চে হবে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে ও ২০ ফেব্রুয়ারি হবে তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে।

২৮ ফেব্রুয়ারি হ্যামিল্টনে শুরু হবে তিন ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচ।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত