শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

বিজিবির গুলিতে ৩ নিহতের বিচার দাবি এলাকাবাসীর: পাল্টা মামলার প্রস্তুতি

আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৮:৪১ পিএম

ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলার বহরমপুরে গরু আটক করা নিয়ে সংঘর্ষে শিশুসহ তিন ব্যক্তি নিহতের ঘটনায় দোষী বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যদের শাস্তি দাবি করেছ এলাকাবাসী।

একই দাবি জানিয়েছেন ঠাকুরগাঁও-২ আসনের সংসদ সদস্য। তবে এ ঘটনায় বিজিবির ওপর হামলার অভিযোগ তুলে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে সীমান্তরক্ষী এ বাহিনী।

বুধবার সন্ধ্যায় বহরমপুর গ্রামের শিশু জয়নুল, শিক্ষক নবাব ও কৃষক সাদেকের মরদেহ পরিবারের কাছে পৌঁছালে হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়।

স্থানীয় সংসদ সদস্য দবিরুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার এমজে আরিফ বেগ, থানার ওসি আমিরুজ্জামানের উপস্থিতিতে তিন মরদেহ বুধবার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এর আগে বুধবার ঠাকুরগাঁও ২ আসনের সংসদ সদস্য দবিরুল ইসলাম হরিপুরে বহরম ও রুহিয়া এলাকা পরিদর্শনে যান। এ সময় তিনি বলেন, যারা মারা গেছে তারা নিঃসন্দেহে নিরীহ। তাদের হত্যা করার অধিকার কারো নেই।

এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত হবে আশা প্রকাশ করে তিনি বলেন, এ ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিজিবির জব্দ করা গরু ওই সময় ভারত থেকে আনা হয়নি, বাড়ির গরু দাবি করে সাংসদ দবিরুল ইসলাম বলেন, এসব গরু স্থানীয় যাদুরানী হাটে বিক্রি করতে নিয়ে যায়। 

এদিকে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে স্থানীয় চাঁপধা বাজারে বিজিবির গুলিতে হতাহতের ঘটনার দোষীদের শাস্তি দাবি করে এলাকাবাসী ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। হত্যার বিচারের দাবিতে স্লোগানও দেয় তারা।

অপরদিকে দুপুরে হরিপুরে উপজেলা নির্বাহী  কর্মকর্তা এম. জে আরিফ বেগ জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিহতদের মরদেহ দাফন করতে প্রত্যেক পরিবারকে ২০ হাজার টাকা প্রদান করেন।

এ সময় বকুয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আবুল কাশেমসহ স্থানীয় নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। 

আরিফ বেগ বলেন, এ ঘটনায় বর্তমান পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। আমরা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পর্যবেক্ষণে রয়েছি যেন অবনতি না হয়।

ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক ড. কেএম কামরুজ্জামান সেলিম বলেন, ঘটনা তদন্তে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শীলাব্রত কর্মকারকে প্রধান করে সাত সদস্যে কমিটি গঠন করা হয়েছে। রোববার থেকে তদন্ত  শুরু হবে। তিন কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করবে বলে জানান তিনি।

এ ব্যাপারে ঠাকুরগাঁও ৫০ বিজিবির অধিনায়ক লে.কর্নেল তুহিন মোহাম্মদ মাসুদ বলেন, চোরাকারবারীদের হাত থেকে পাঁচটি গরু উদ্ধার হয়। এর মধ্যে দুটি গরু বিজিবির কাছ থেকে ছিনিয়ে নেয়। বাকি তিনটি গরু বিজিবির হেফাজতে আছে। বিজিবির ওপর হামলার ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।

মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর উপজেলার বহরমপুর গ্রামে বিক্রির জন্য হাটে নেওয়ার পথে বিজিবির গরু আটকের জেরে এ সংঘর্ষ হয়। এতে তিন গ্রামবাসী নিহত ও আহত হয়েছেন আরও ১৪ জন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত