রোববার, ১৬ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ

সন্তানের স্বীকৃতি দিতে টাকা চাইছেন বাবা

আপডেট : ০৩ মার্চ ২০১৯, ০২:১৯ এএম

সন্তানকে স্বীকৃতি দিতে ১০ কোটি টাকা দাবির অভিযোগ উঠেছে এক বাবার বিরুদ্ধে। আফরিনা সুলতানা মুক্তা নামে এক নারী গতকাল শনিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাগর-রুনি মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করে সাবেক স্বামীর বিরুদ্ধে এ অভিযোগ করেন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘তার সাবেক স্বামী বাংলাদেশ জুয়েলারি সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন খোকন তাদের পরিবারের নগদ টাকা ও ব্যবসা হাতিয়ে নিয়েছেন। এখন কন্যাসন্তানকে অস্বীকার করে ১০ কোটি টাকা দাবি করছেন।’ জানতে চাইলে অভিযোগ অস্বীকার করে জয়নাল আবেদীন খোকন দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘মুক্তা তার সাবেক স্ত্রী। তার সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয়ে গেছে। এ বিষয়ে পারিবারিক আদালতে মামলা চলছে।’ তিনি বলেন, ‘সন্তান যারই হোক আমি পিতৃত্ব অস্বীকার করছি না।’

পুরান ঢাকার নারিন্দার বাসিন্দা মুক্তা আরও বলেন, ‘আমি পৈতৃকসূত্রে স্বর্ণ ব্যবসায়ী ছিলাম। ব্যবসা থেকে তাবলিগ জামাতের নেতা জয়নালের সঙ্গে পরিচয়। এরপর বিভিন্ন সময় ধর্মীয় আলাপ আলোচনার মাধ্যমে তার সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি হয় এবং বিয়ের সিদ্ধান্ত নিই। বাবার অমতে জয়নালকে এক কোটি টাকা যৌতুক দিয়ে মাত্র ১০১ টাকা কাবিনে বিয়ে করি। তিনি বলেন, ‘জয়নালের অতি লোভ ও নিষ্ঠুর আচরণে বিয়ের ছয় মাসের মাথায় তাকে তালাক দিই। জয়নাল পুনরায় ধর্মের দোহাই দিয়ে আমার কাছে ক্ষমা চেয়ে দুই মাস পর পুনরায় বিয়ে করেন।’ এ নারীর অভিযোগ, ‘আমি অন্তঃসত্ত্বা থাকার সময় জিন তাড়ানোর নামে ভ- হুজুর ডেকে এনে ৭৮ ভরি স্বর্ণ লুট করে জয়নাল। মামলা করলে পুলিশের তদন্তে দেখা যায়, জয়নালের প্রথম স্ত্রীর যোগসাজশে এসব স্বর্ণ লুট করা হয়েছে। প্রতারণা ধরা পড়ায় তাকে তালাক দিতে চাইলে শপথ করে নিজেকে শুধরে নিতে দুই মাস সময় চান জয়নাল। গত বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি কন্যার জন্ম হলে জয়নাল শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার শুরু করেন এবং সন্তানের পিতৃত্ব অস্বীকার করেন। এক পর্যায়ে তিনি ১০ কোটি টাকা দিলে বাচ্চার বৈধতা স্বীকার করবেন বলে জানান।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত