বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

সি-ট্রাক বন্ধ দেড় বছর

ঝুঁকি নিয়ে মেঘনা পারাপার

আপডেট : ১১ মার্চ ২০১৯, ০৯:১৫ পিএম

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার চরচেঙ্গা-বয়ারচর চেয়ারম্যানঘাট নৌপথে ২০১৭ সালের ৪ সেপ্টেম্বর থেকে সি-ট্রাক চলাচল বন্ধ রয়েছে। তাই দেড় বছর ধরে যাত্রীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ইঞ্জিনচালিত নৌকায় (ট্রলার) উত্তাল মেঘনা পাড়ি দিতে গিয়ে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন।

কৃষক, শ্রমিক, চাকরিজীবী, ব্যবসায়ী, রোগী, বয়স্কসহ সব শ্রেণিপেশার যাত্রীরা এ নৌপথে কালবৈশাখীর ঝড়-তুফানের মধ্যেও ট্রলারে প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টায় ৫৫ কিলোমিটার মেঘনা পার হচ্ছেন। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা যাত্রীরা বয়ারচর চেয়ারম্যানঘাট থেকে ট্রলারে মেঘনা পাড়ি দিয়ে তমরদ্দি ও চরচেঙ্গা ঘাটে আসেন। কয়েকদিন ধরে তমরদ্দি, চরচেঙ্গা ও বয়ারচর চেয়ারম্যানঘাটে গিয়ে যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে তাদের নানা দুর্ভোগের কথা জানা গেছে।

তারা জানান, দীর্ঘদিন সি-ট্রাক না থাকায় এ নৌপথে চলতে গিয়ে সীমাহীন ঝুঁকি ও দুর্ভোগে পড়েছেন। খারাপ আবহাওয়াতেও তারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ট্রলারে উত্তাল মেঘনা পাড়ি দিতে বাধ্য হচ্ছেন। ভাড়া দিতে হচ্ছে সি-ট্রাকের চেয়ে প্রায় দ্বিগুণ।

কবে নাগাদ এ নৌপথে সি-ট্রাক চলবে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিএ) চট্টগ্রাম কার্যালয়ের উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) গোপাল চন্দ্র মজুমদার গতকাল মুঠোফোনে দেশ রূপান্তরকে বলেন, ঢাকা অফিস থেকে এ নৌপথে চলাচলের জন্য কয়েকবার সি-ট্রাক ‘এস টি ভাষা শহীদ জব্বার’ বুঝে নেওয়ার জন্য আদেশ দেওয়া হলেও চার্টারার (ইজারাদার) সি-ট্রাকটি বুঝে নেননি। এখন এ নৌপথে অন্য চার্টারার নিয়োগের জন্য দরপত্র (টেন্ডার) আহ্বান করা হয়েছে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত