মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

গত বছর প্রধানমন্ত্রীর নগদ সহায়তার ৩০ ভাগই বাস্তবায়ন হয়নি: দেবপ্রিয়

আপডেট : ০৯ মে ২০২১, ০৭:৪৬ পিএম

করোনা মহামারী পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া নগদ সহায়তা গত বছরই ৩০ শতাংশের বেশি বাস্তবায়ন হয়নি বলে দাবি করেছেন এসডিজি বাস্তবায়নে নাগরিক প্ল্যাটফর্মের আহ্বায়ক ও বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) সম্মানীয় ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য।

রবিবার নাগরিক প্ল্যাটফর্মে ‘জাতীয় বাজেট ২০২১-২২: পিছিয়ে পড়া মানুষের জন্য কী থাকছে’ শীর্ষক সংলাপে তিনি এমন দাবি করেন।

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য। এতে অনলাইনে যুক্ত ছিলেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা সুলতানা কামাল, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ও শিক্ষাবিদ রাশেদা কে চৌধুরী এবং সিপিডির সম্মানীয় ফেলো অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজুর রহমান প্রমুখ।

দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য বলেন, সামাজিক কর্মসূচির আওতায় গত দেড় বছরে ২৫টি কর্মসূচি সরকার হাতে নিয়েছে। এর মধ্যে ১৯টি নতুন ও ছয়টি পুরোনো। মোট ব্যয় ১২৫ হাজার কোটি টাকা। এর মধ্যে প্রত্যক্ষ সাহায্যের পরিমাণ মাত্র ২০ দশমিক ৫ শতাংশ। বাকি ৮০ শতাংশ এক ধরনের প্রণোদনার নামে সহজ শর্তে ঋণ।

তিনি বলেন, প্রত্যক্ষ সাহায্যের মধ্যে কভিডের কারণে ক্ষতিগ্রস্তদের আর্থিক সহায়তার পরিমাণ অনেক কম। প্রত্যক্ষ সাহায্যের মধ্যে সরকারের সামাজিক কর্মসূচির সব বিষয় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য বলেন, প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে ২৫০০ টাকা ৫০ লাখ মানুষের মাঝে বিতরণ করার কথা থাকলেও গত বছর ৩৫ লাখের বেশি মানুষের কাছে তা পৌঁছায়নি। বাস্তবায়ন হয়নি ৩০ শতাংশের বেশি।

তিনি বলেন, এবারও কিন্তু তাদেরকেই আবার সাহায্য করা হচ্ছে। সহায়তার আওতা কিন্তু বাড়েনি। অর্থাৎ সরকার তাদের ব্যয় করার ক্ষেত্রে দক্ষতা দেখাতে পারেনি।

দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য জানান, বর্তমানে সরকারের পাইপলাইনে চার বিলিয়ন ডলার বৈদেশিক সাহায্য রয়েছে। আসলে অর্থের অভাব নেই, অভাব ব্যয় করার যোগ্যতার। আসলে বৈদেশিক সাহায্য ব্যবহারের ক্ষেত্রে দক্ষতা দেখাতে পারছি না। বরং সরকারি ব্যয় করার ক্ষেত্রে দুর্নীতি দৃশ্যমান হচ্ছে।

রাশেদা কে চৌধুরী বলেন, এমপিও’র বাইরে থাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের হাজার হাজার শিক্ষক বেতন না পেয়ে অন্য পেশায় ঝুঁকে পড়ছেন। এ অবস্থায় আগামী ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটে তাদের জন্য বরাদ্দের দাবি জানান তিনি।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত