রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

গরমে রোজায় পানিশূন্যতা থেকে মুক্ত থাকার উপায়

  • রোজায় ঘাম, প্রস্রাবের মাধ্যমে শরীর থেকে প্রচুর পানি বেরিয়ে যাওয়ার কারণে পানিশূন্যতা দেখা দেয়
আপডেট : ০৩ এপ্রিল ২০২৪, ১১:১৮ এএম

রোজার সময়ে দীর্ঘ সময় পানাহার থেকে বিরত থাকতে হয়। যার কারণে পানিশূণ্যতাসহ নানা শারীরিক জটিলতা দেখা দিতে পারে অনেকের। তার ওপর গরমের সময়ে রোজা রাখতে গিয়ে পনিশূন্যতায় ভোগার আশঙ্কা বেশি থাকে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন অনেক সময় পানিশূন্যতার কারণে হার্ট রেট কিংবা প্রেশার কমে গুরুতর সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আর তাই রোজার সময়েও পানিশূন্যতা এড়িয়ে চলার পরামর্শ তাদের।

পানিশূন্যতা কেন হয়

রোজার সময় রোজাদারদের দিনের বেলায় পানাহারের সুযোগ নেই বলে দীর্ঘ সময় পানি পান করতে পারেন না। অন্যদিকে ঘাম, প্রস্রাব ও শ্বাস-প্রশ্বাসের মাধ্যমে প্রচুর পানি শরীর থেকে বেরিয়ে যায়। এ কারণে শরীরে পানিশূন্যতার সম্ভাবনা তৈরি হয়। এছাড়া খাবার তালিকায় পানিসমৃদ্ধ খাবার না রাখা, জ্বর বা ডায়রিয়ার মতো অসুস্থতাজনিত কারণেও পানিশূন্যতা হয়ে থাকে। অতিরিক্ত ভাজা পোড়া জাতীয় খাবারে, ইফতারের পর অতিমাত্রায় চা কফি খেলেও এই সমস্যা দেখা দেয়।

পানিশূন্যতার লক্ষণ

চিকিৎসকদের তথ্যমতে, শরীর পানিশূন্য হয়ে পড়লে জিহ্বা দেখে সহজে বোঝা যায় কারণ জিহ্বা শুকিয়ে যায়। এছাড়া অনেকের চোখ গর্তে চলে যায় এবং দৃষ্টি ঝাপসা হয়ে আসে। তাছাড়া শরীর দুর্বল হয়ে পড়ে ও কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো সমস্যা তেরি হয়। এমনকি পানিশূন্যতার কারণে হার্ট রেট ও প্রেশার কমে যেতে পারে।

পানিশূন্যতা থেকে মুক্ত থাকার উপায়

পুষ্টিবিদদের মতে, সাধারণ সময়ে প্রতি ঘণ্টায় অন্তত এক গ্লাস পানি খাওয়া উচিত একজন ব্যক্তির। তবে রোজার কারণে দিনের সময়টুকুতে পানি না খাওয়ার ফলে ইফতার থেকে সেহরির সময় পর্যন্ত পর্যাপ্ত পানি পান করা উচিত।

এখানে পুষ্টিবিদদের বেশ কিছু পরামর্শ দেওয়া হল,

১. ইফতার ও সেহরির মধ্যকার সময়ে পর্যাপ্ত পানি পান করা

২. সহজে হজম হয় এমন খাবার খাওয়া

৩. ইফতারে ফলের রস ও ফলের পরিমাণ বেশি রাখা

৪. সরাসরি রোদে না যাওয়া

৫. অতিরিক্ত খাবার না খাওয়া

৫. প্রয়োজনে ডাবের পানি বা খাবার স্যালাইন পান করা

৬. হালকা শরীর চর্চা করা

৭. ফ্রিজের ঠাণ্ডা পানি না খাওয়া।

৮. পর্যাপ্ত পানির পাশাপাশি খাবারে লাউ, কুমড়ো বা পেঁপে জাতীয় খাবার বেশি রাখলে শরীর পানিশূন্যতা থেকে রক্ষা পাবে।

৯. শরীর ফিট রাখতে নিয়মিত গোসল এবং চোখে মুখে বারবার পানি দেয়ার পরামর্শও দিয়ে থাকেন অনেক পুষ্টিবিদ।

সূত্র: বিবিসি

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত