সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

সুবিধাবঞ্চিত মানুষের কাছে অনুদান পৌঁছে দেওয়া যাচ্ছে বিকাশ-এ

আপডেট : ০৪ এপ্রিল ২০২৪, ১২:২৩ এএম

প্রতি বছর পবিত্র রমজান মাসে সামর্থ্যবানরা দান-সদকার মাধ্যমে সমাজের দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর সুযোগ পান। ইসলামে দান-সদকা ও অন্যকে সহযোগিতার গুরুত্ব অপরিসীম। পবিত্র এ মাসে প্রকৃত দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিতদের কাছে জাকাত-ফিতরা পৌঁছে দেওয়া অনেকের জন্যই কঠিন হয়ে পড়ে। তবে সামর্থ্যবানদের এ দান সুবিধাবঞ্চিতদের কাছে সময়মতো পৌঁছে দিতে দেশ জুড়ে কাজ করে যাচ্ছে বেশ কিছু দাতব্য ও স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান। আর গত কয়েক বছর ধরে জনহিতৈষী এ প্রতিষ্ঠানগুলোয় অর্থ সহায়তা পাঠানোর প্রক্রিয়া সহজ করার কাজ করে যাচ্ছে বিকাশ। এ কারণে রমজানের পাশাপাশি বছর জুড়েই বিকাশের মাধ্যমে অনুদান দিয়ে বিভিন্ন জনহিতৈষী কার্যক্রমে যুক্ত থাকতে পারছেন গ্রাহকরা।

বর্তমানে বিকাশ থেকে ২৮টির বেশি দাতব্য প্রতিষ্ঠানে অনুদান দেওয়া যাচ্ছে। যার মধ্যে অন্যতম আঞ্জুমান মুফিদুল ইসলাম, ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন, বাংলাদেশ থ্যালাসেমিয়া ফাউন্ডেশন, সেন্টার ফর জাকাত ম্যানেজমেন্ট, অভিযাত্রিক ফাউন্ডেশন, ডুনেশন ফাউন্ডেশন ট্রাস্ট, প্রথম আলো ট্রাস্ট, জাগো ফাউন্ডেশন, আস-সুন্নাহ ফাউন্ডেশন, তাসাউফ ফাউন্ডেশন, শক্তি ফাউন্ডেশন, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর, সাজেদা ফাউন্ডেশন, মির্জাপুর এক্স ক্যাডেটস অ্যাসোসিয়েশন, কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশন, এসওএস চিলড্রেন ভিলেজ বাংলাদেশ, আইসিডিডিআর,বি, ন্যাশনাল লিভার ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ ইত্যাদি।

অভিযাত্রিক ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক আহমেদ ইমতিয়াজ জামি বলেন, ‘রমজান মাসে দেশ এবং দেশের বাইরে থেকে অনেক মানুষ তাদের জাকাত-ফিতরা দিয়ে থাকেন। অনেকেই বিকাশের মাধ্যমে আমাদের কাছে তাদের অনুদান পৌঁছে দেন। বিকাশ অ্যাপে ঢুকে আমাদের মতো অনেক সংগঠন আছে যেখানে মানুষ ডোনেট করতে পারছেন। অভিযাত্রিকে ২৫ টাকা অনুদান দিলে আমরা একজন মানুষকে ইফতার করাতে পারি। এ বছর ঢাকাসহ আরও কয়েকটি জেলায় সর্বমোট ৫০ হাজার মানুষের কাছে ইফতার পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছি আমরা।’

অনুদান দিতে গ্রাহককে বিকাশ অ্যাপের ‘অন্যান্য সেবাসমূহ’ অংশ থেকে ‘ডোনেশন’ আইকনে ক্লিক করতে হবে। যে প্রতিষ্ঠানকে অনুদান দিতে চান তা নির্বাচন করে নাম, ইমেইল আইডি ও অনুদানের পরিমাণ উল্লেখ করে সাবমিট করতে হবে। গ্রাহক চাইলে ‘পরিচয় দিতে অনিচ্ছুক’ অপশন নির্বাচন করে নিজের পরিচয় গোপনও রাখতে পারবেন। পরের ধাপে বিকাশ পিন নম্বর দিয়ে অনুদান কার্যক্রম শেষ করার পর একটি প্রাপ্তি স্বীকারপত্র পেয়ে যাবেন গ্রাহক।

যে প্রতিষ্ঠানে গ্রাহক অনুদান দিচ্ছেন সে প্রতিষ্ঠানটি সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাবে প্রতিষ্ঠানটির নামের নিচে ‘আরো জানুন’ অংশে ক্লিক করে। আবার অনুদানের অর্থ কোথায় ব্যয় হচ্ছে সে তথ্য জানার জন্য অনুদান শেষে প্রাপ্তি স্বীকারপত্রে দেওয়া ইমেইলে যোগাযোগ করতে পারবেন দাতারা। বিকাশ অ্যাপের পাশাপাশি গ্রাহক চাইলে https://www.bkash.com/products-services/donation ওয়েব ঠিকানা থেকেও পেমেন্ট গেটওয়ের মাধ্যমে অনুদান বিকাশ করতে পারবেন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত