বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

চলে গেলেন ডেরেক ‘ডেডলি’ আন্ডারউড

আপডেট : ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:৫৩ পিএম

১৯৭৪ এর আগস্ট, লর্ডসে পাকিস্তানের মুখোমুখি ইংল্যান্ড। প্রথম ইনিংসে পাকিস্তানের পাঁচ ব্যাটসম্যানকে সাজঘরে ফেরানোর পর ব্যাট হাতে ১২ রানে অপরাজিত। দ্বিতীয় ইনিংসে তিনি আরও নিষ্ঠুর। একে একে তুলে নিলেন পাকিস্তানের ৮টি উইকেট। তার ঘুর্ণিবিষে নীল হওয়া পাকিস্তান ওই টেস্ট হেরেছিল ১০ উইকেটে। 

এর তিন বছর পর ভারতের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচ সিরিজে ২৯ উইকেট নিয়ে ইংল্যান্ডকে সিরিজ জিতিয়েছিলেন তিনি। তার নিখুঁত বোলিং অ্যাকুরেসির জন্য ক্রিকেট বিশ্বে তার ডাকনাম হয়ে যায় ‘ডেডলি’। ৬০ ও ৭০ দশকে সুনিল গাভাস্কারের মতো ব্যাটসম্যানদের ত্রাস বনে যাওয়া কেন্ট ও ইংল্যান্ডের কিংবদন্তি স্পিনার ডেরেক আন্ডারউড চলে গেছেন পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে। ৭৮ বছর বয়স হয়েছিল তার। 

ইংল্যান্ডের সর্বকালের সেরা স্পিনারদের একজন মানা হয় ডেরেক ওরফে ‘ডেডলি’ আন্ডারউডকে। বাঁহাতি অর্থোডক্স স্পিন করতেন তিনি। ৮৬ টেস্টে তার শিকার ২৯৭ উইকেট। ইংল্যান্ডের হয়ে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারীদের তালিকায় এখনো ষষ্ঠ অবস্থানে রয়েছেন তিনি।

১৯৬৮ অ্যাশেজের শেষ টেস্টে বৃষ্টিবাঁধায় পণ্ড হতে যাওয়া ম্যাচ মাঠে ফিরেছিল দর্শকদের প্রচেষ্টায়। তারাই খেলার উপযোগী করেছিলেন আউটফিল্ড। ওই ম্যাচে ২৭ বলের ব্যবধানে ৪ উইকেট শিকার করে ৬ মিনিট বাকি থাকতে ম্যাচ জিতিয়েছিলেন ডেরেক। তাতে অ্যাশেজের ওই সিরিজ ড্র করেছিল ইংলিশরা। 

১৭ বছর বয়সে অভিষেকের পর থেকে আজীবন কেন্টের হয়েই ঘরোয়া ক্রিকেট খেলেছেন ডেরেক। ৯০০’র বেশি ম্যাচ খেলা ডেরেক ১৯.০৪ গড়ে ক্যারিয়ারে ২ হাজার ৫২৩ উইকেট শিকার করেছেন। ১৯৬৯ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ১৯৭৩ সালের আগস্ট পর্যন্ত টেস্ট বোলারদের র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষস্থানটি ছিল তার দখলে।

 

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত