সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

জনস্বাস্থ্য হুমকি ঠেকাতে সহযোগীদের এগিয়ে আসার আহ্বান

আপডেট : ০৯ মে ২০২৪, ০৯:৪৩ পিএম

স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেনের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন চার আন্তর্জাতিক সহযোগী সংস্থার প্রতিনিধিরা। এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বাংলাদেশে জলবায়ু পরিবর্তনে জনস্বাস্থ্য হুমকি ঠেকাতে সহযোগী অংশীদারদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কার্যালয়ে সুইডেন, ইউএসএইড, ইউনিসেফ ও এফসিডিও প্রতিনিধিদলের সঙ্গে এই সৌজন্য সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হয়। সাক্ষাতে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জনগণের জীবনমান উন্নয়নে স্বাস্থ্য খাতে বর্তমান সরকারের উল্লেখযোগ্য অর্জন তুলে ধরেন।

সাক্ষাতের সময় সুইডিশ দূতাবাসের ডেপুটি হেড অব মিশন মারিয়া স্ট্রাইডসম্যানের এক প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, উন্নয়ন সহযোগী অংশীদাররা নার্সদের এবং স্বাস্থ্যসেবার বিশেষ দিকেগুলো নিয়ে বিশেষায়িত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে পারে। আর দক্ষ প্রশিক্ষিত স্বাস্থ্য কর্মী জনগণের স্বাস্থ্যের মান বৃদ্ধিতে সহায়ক হবে।

এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বাংলাদেশের মানুষের স্বাস্থ্য ও জীবিকা যে বহুমাত্রিক হুমকির সম্মুখীন হচ্ছে তা উল্লেখ করে সহযোগী অংশীদারদের তা মোকাবিলায় এগিয়ে আসতে আহ্বান জানান।

এন্টিবায়োটিক ও তার যথেচ্ছ ব্যবহার রোধে প্রতিনিধিদলকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, সরকার ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এক্ষেত্রে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণার পাশাপাশি ওষুধ কেনাবেচার সাথে সংশ্লিষ্টদের ওপর কঠোর নজরদারি চালিয়ে যাচ্ছে।

এই সৌজন্য সাক্ষাতে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব মো. জাহাঙ্গীর আলম, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব মো. আজিজুর রহমান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশিদ আলম, সুইডিশ দূতাবাসের ডেপুটি হেড অব মিশন মারিয়া স্ট্রাইডসম্যান, ইউএসএইড বাংলাদেশ মিশন ডিরেক্টর রিড এশলিম্যান, ব্রিটিশ ডেপুটি হাই কমিশনার ম্যাট ক্যানেল প্রমুখ।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়, স্বাস্থ্যসেবার মান উন্নয়নে ও জনস্বাস্থ্যের সামগ্রিক উন্নতি ঘটাতে দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশ সরকার ও উন্নয়ন সহযোগী সুইডেন, ইউএসএইড, ইউনিসেফ ও এফসিডিও নিবিড়ভাবে কাজ করছে। মাতৃস্বাস্থ্য, টিকাদান, শিশু স্বাস্থ্য, নবজাতকের পরিচর্যা, কমিউনিটি হেলথসহ স্বাস্থ্যসেবা খাতের বিভিন্ন পর্যায়ে জনগণের স্বাস্থ্যের সামগ্রিক উন্নতিতে এ সহযোগিতা ইতিবাচক প্রভাব ফেলছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত