মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

২৩ নাবিক নিয়ে কুতুবদিয়ায় এমভি আবদুল্লাহ

আপডেট : ১৩ মে ২০২৪, ০৬:৫৮ পিএম

সোমালি জলদস্যুদের জিম্মি দশা থেকে মুক্তির ঠিক ১ মাস পর ২৩ নাবিক নিয়ে কুতুবদিয়ায় নোঙর করেছে এমভি আবদুল্লাহ। আজ সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে কুতুবদিয়ায় নোঙর করে এমভি আবদুল্লাহ। এদিকে নাবিকদের আগামীকাল মঙ্গলবার বিকেলে কুতুবদিয়া থেকে চট্টগ্রাম আসার কথা।

সোমালিয়ান জলদস্যুদের কবল থেকে মুক্তি পেয়ে এমভি আবদুল্লাহ সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে আমদানি করা ৫৬ হাজার টন চুনাপাথর নিয়ে এসেছে। কার্গোর কিছু অংশ কুতুবদিয়ায় খালাস করা হবে এবং বাকি পণ্য খালাসের জন্য জাহাজটি চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙরে আসবে বলে জানা গেছে।

কবির গ্রুপের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মেহেরুল করিম বিকেলে গণমাধ্যমকে বলেন, রাত ৮টার দিকে এমভি আবদুল্লাহ কুতুবদিয়া চ্যানেলে নোঙর ফেলবে।

একই গ্রুপের মিডিয়া উপদেষ্টা মিজানুল ইসলাম বলেন, সেখানে জাহাজ নোঙরের পর পণ্য খালাস শুরু হবে। আগামীকাল বিকেল ৪টার দিকে নাবিকদের সবাই চট্টগ্রামের সদরঘাট এলাকায় কেএসআরএমের জেটিতে উপস্থিত হবেন।

তিনি আরো জানান, এমভি আবদুল্লাহতে ৫৬ হাজার মেট্রিক টন চুনাপাথর রয়েছে। কুতুবদিয়া চ্যানেলে দুইদিন পণ্য খালাসের পর বাকি পণ্য খালাসের জন্য চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙরে জাহাজটি নিয়ে আসার কথা রয়েছে। 

এ দিকে জাহাজ মালিক পক্ষের কর্মকর্তারা জানান, এমভি আবদুল্লাহ জাহাজে নতুন করে ২৩ জন নাবিক আজ যোগদান করবে। নতুন নাবিকেরা এখন চট্টগ্রাম থেকে কুতুবদিয়া যাচ্ছেন। তারা যোগদানের পর জিম্মিদশা থেকে মুক্ত নাবিকরা তাদের হাতে দায়িত্ব হস্তান্তর করবেন। এরপর তারা চট্টগ্রাম আসবেন।

বাংলাদেশি পতাকাবাহী জাহাজ এমভি আবদুল্লাহ ৫০ হাজার টন কয়লা নিয়ে আফ্রিকার দেশ মোজাম্বিকের মাপুতু বন্দর থেকে গত ৪ মার্চ সংযুক্ত আরব আমিরাতের উদ্দেশে রওনা হয়েছিল। ১৯ মার্চ জাহাজটি এসব পণ্য নিয়ে আরব আমিরাতের আল হামরিয়া বন্দরে পৌঁছনোর কথা ছিল। এ দিকে মাপুতু বন্দর থেকে রওনা হওয়ার চার দিন পর গত ১২ মার্চ ভারত মহাসাগরে বাংলাদেশি ২৩ নাবিকসহ জাহাজটি সোমালি জলদস্যুদের কবলে পড়ে।

সোমালি জলদস্যুদের হাতে জিম্মি হওয়ার দীর্ঘ ৩৩ দিন পর গত ১৩ এপ্রিল ২৩ নাবিকসহ এমভি আবদুল্লাহ মুক্ত হয়। মুক্ত হওয়ার আট দিনের মাথায় গত ২১ এপ্রিল বিকালে নাবিকসহ এমভি আবদুল্লাহ দুবাই পৌঁছে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত